নিম্ন ও মধ্য আয়ের লোকজনের বাসস্থানের ব্যবস্থা করবে গৃহায়ন কর্তৃপক্ষ : খন্দকার আখতারুজ্জামান
আজকের কণ্ঠঃ ওয়েবসাইটে স্বাগতম | যোগাযোগ : 01730951049, 8802 58316319, 8802 5831 6320
২৮ অক্টোবর, ২০২০ ০৬:৩৩ পূর্বাহ্ন       রেজিষ্টার করুন | লগইন    


  


নিম্ন ও মধ্য আয়ের লোকজনের বাসস্থানের ব্যবস্থা করবে গৃহায়ন কর্তৃপক্ষ : খন্দকার আখতারুজ্জামান

Sabuj ২৪-০৬-২০১৮ ০২:০১ অপরাহ্ন প্রকাশিতঃ

সফিকুল ইসলাম সবুজ :

জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান খন্দকার আখতারুজ্জামান বলেছেন ‘নিম্ন ও মধ্যম আয়ের লোকজনের গৃহায়নের ব্যবস্থা করবে জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষ।’

 

আজকের কণ্ঠের সঙ্গে একান্ত আলাপচারিতায় খন্দকার আখতারুজ্জামান বলেন, ‘সরকারের প্রতিশ্রুতি রক্ষা ও রাষ্ট্রের সাংবিধানিক দায়িত্ব পালনে জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষ নিম্ন ও মধ্যম আয়ের জনগোষ্ঠির গৃহায়নের ব্যবস্থা করে দেওয়ার জন্য দায়বদ্ধ। সেই লক্ষে প্রতিষ্ঠাকালীন সময় হতে জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষ সমাজের বিভিন্ন সম্প্র্রদায়ের গৃহায়ন চাহিদা ও সামর্থ্য বিবেচনায় নিয়ে ভিন্ন ভিন্ন আবাসন প্রকল্প বাস্তবায়ন করে আসছে।’ 

 

মানুষের মৌলিক চাহিদার মধ্যে অন্যতম হলো আবাসন। জনগণের জীবনযাত্রার বস্তুগত উন্নয়ন ও সংস্কৃতিগত উৎকর্ষ সাধনের লক্ষ্যে সকল নাগরিকের জন্য মানসম্মত গৃহায়নের ব্যবস্থা করা রাষ্ট্রের একটি সাংবিধানিক দায়িত্ব। সকলের জন্য পরিকল্পিত আবাসনের ব্যবস্থা করতেও সরকার প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। 

 

বর্তমানে দেশব্যাপী গৃহায়ন সমস্যা ব্যাপক আকার ধারণ করেছে। গৃহহীন পরিবারের সংখ্যাধিক্য, অননুমোদিত বস্তির সংখ্যা বৃদ্ধি, জমি ও গৃহ নির্মাণ সামগ্রীর ক্রমবর্ধমান মূল্য বৃদ্ধি, বাড়ী ভাড়া বৃদ্ধি, নাগরিক সুবিধার অপর্যাপ্ততা এবং দরিদ্র জনগোষ্ঠীর ক্রয় সীমার মধ্যে আবাসনের দুষ্প্রাপ্যতা গৃহায়ন ও আবাসন সমস্যাকে জটিল করে তুলছে।

 

সরকারী হিসেব মতে, ১৯৯৩ সনে গৃহায়ন ঘাটতির পরিমাণ ছিল ৩১ লক্ষ ইউনিট। ২০০০ সালে উক্ত ঘাটতি ছিল ৫০ লক্ষাধিক ইউনিট। ২০০১ সালে শুধুমাত্র নগর এলাকায় গৃহায়ন ঘাটতির পরিমাণ ছিল ১.১৩ মিলিয়ন ইউনিট, ২০১০ সালে তা বেড়ে দাড়ায় ৪.৬ মিলিয়ন ইউনিট। অনুমান করা যায় যে, ২০২১ সাল নাগাদ নগর এলাকায় গৃহায়ন ঘাটতি হবে ৮.৫ মিলিয়ন ইউনিট। 

 

এক প্রশ্নের জবাবে খন্দকার আখতারুজ্জামান বলেন, ‘গৃহায়ন কর্তৃপক্ষ জাতীয় গৃহায়ন নীতিমালা অনুসরণ করে আবাসন উন্নয়ন ও পুনর্বাসনের কাজ করে যাচ্ছে। দেশের সার্বিক আর্থ-সামাজিক অবস্থা বিবেচনা ও বিশ্বায়নের সাথে তাল মিলিয়ে টেকসই আবাসন উন্নয়নে নতুন নতুন কার্যক্রম গ্রহণ করছে। এ সকল কার্যক্রম গ্রহণে জলবায়ু পরিবর্তন জনিত বিরূপ প্রভাব গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করা হচ্ছে।’

 

গৃহায়নের এই কর্তা বলেন, ‘বাংলাদেশ আজ স্বল্প আয়ের দেশ হতে মধ্যম আয়ের দেশের মর্যাদা অর্জন করেছে এবং ২০৪১ সাল নাগাদ উন্নত দেশে উন্নীত হবে বলে আমরা আশা করছি। উন্নয়নের এ প্রেক্ষাপট ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা ‘সকলের জন্য আবাসন/কেউ গৃহহীন থাকবে না’ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষ সাশ্রয়ী মূল্যের টেকসই আবাসন নির্মাণে বদ্ধপরিকর।’

 

তিনি আরো জানান, দেশব্যাপী সবার জন্য আবাসন সুবিধা নিশ্চিত করতে জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষ বর্তমানে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে নিজস্ব অর্থায়নে ৪০টি প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে। এ সকল প্রকল্পের মাধ্যমে ৩২৬৭ টি প্লট ও ৭১২৫ টি ফ্ল্যাট তৈরি করা হচ্ছে। এছাড়া ২৬টি সমাপ্তকৃত প্রকল্পের মাধ্যমে ৪৪৬৫ টি প্লট ও ২১৬৯ টি ফ্ল্যাট নিম্ন ও মধ্যম আয়ের জনগোষ্ঠির মধ্যে বরাদ্ধ দেয়া হয়েছে।

 

শুধুমাত্র দরীদ্র জনগোষ্ঠির আবাসন চাহিদা পূরণকল্পে জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষ কতিপয় বিশেষায়িত প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে। বিশ্ব ব্যাংকের অর্থায়নে বাস্তবায়নাধীন আংশিদারিত্ব ভিত্তিক “স্বল্প আয়ের মানুষের জন্য উন্নত জীবন ব্যবস্থা প্রকল্প” বাংলাদেশের শহর এলাকায় বসবাসরত বিধিবহির্ভূত ও নিম্ন আয়ের (low income and informal settlements) জনবসতির জীবনমান উন্নয়ন এর যুগোপযোগী পদক্ষেপ। নিজস্ব অর্থায়নে বস্তিবাসীদের জন্য আধুনিক সুযোগ-সুবিধা সম্বলিত বহুতল বিশিষ্ট ভাড়াভিত্তিক ৫৩৩টি আবাসিক ফ্ল্যাট প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে এবং সরকারী  অর্থায়নে, ৯৪৭৭টি আবাসিক ফ্ল্যাট নির্মাণ করা হবে যা বস্তিবাসীর আবাসন সমস্যা সমাধানে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখবে। এছাড়া, দ্রুত সময়ের মধ্যে আবাসন চাহিদা পূরণকল্পে পাবলিক-প্রাইভেট-পার্টনারশিপ পদ্ধতি অনুসরণ করে সাশ্রয়ী মূল্যের আবাসন প্রকল্প বাস্তবায়নের কাজ শুরু করা হয়েছে। 

 

‘টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা’ (Sustainable Development Goals) অর্জন ও ‘জাতীয় গৃহায়ন নীতিমালা-২০১৬’ বাস্তবায়নে জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষের চলমান এহেন কর্মকান্ড সকল মহলের প্রশংসা পাচ্ছে ।

 

২৪-০৬-২০১৮ ০২:০১ অপরাহ্ন প্রকাশিত হয়েছে


পাঠকের ফেসবুক মন্তব্যঃ

আজকের কণ্ঠঃ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

অন্যান্য খবরসমুহ
: আরো খরবসমুহ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ প্রকাশিত
ফেসবুকে আজকের কণ্ঠঃ
আজকের কণ্ঠঃ ফোকাস
বিজ্ঞাপন

ভিজিটর সংখ্যা
100
২৮ অক্টোবর, ২০২০ ০৬:৩৩ পূর্বাহ্ন