মুজিববর্ষ ঘিরে অর্থায়ন-লেনদেনে স্বচ্ছতা চায় টিআইবি
আজকের কণ্ঠঃ ওয়েবসাইটে স্বাগতম | যোগাযোগ : 01730951049, 8802 58316319, 8802 5831 6320
২৩ অক্টোবর, ২০২০ ০৮:১৮ পূর্বাহ্ন       রেজিষ্টার করুন | লগইন    


  


মুজিববর্ষ ঘিরে অর্থায়ন-লেনদেনে স্বচ্ছতা চায় টিআইবি

নিউজ ডেস্কঃ ১৭-০৩-২০২০ ১২:০৪ পূর্বাহ্ন প্রকাশিতঃ

‘জাতির জনকের আহ্বানে দুর্নীতির বিরুদ্ধে একসাথে’, এই প্রত্যয়ে সরকার ও রাজনৈতিক নেতাসহ সব অংশীজনের প্রতি মুজিববর্ষের যাবতীয় কার্যক্রমে অর্থায়ন ও আর্থিক লেনদেনে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিতের দাবি জানিয়েছে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)।

 

জাতির পিতা দুর্নীতি নিয়ন্ত্রণের কার্যকর কৌশল ও দিকনির্দেশনা রেখে গেছেন উল্লেখ করে টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান সোমবার (১৬ মার্চ) এক বিবৃতিতে বলেন, বঙ্গবন্ধুর আদর্শে উজ্জীবিত হয়ে তার জন্মশতবার্ষিকীতে দুর্নীতিমুক্ত ও সুশাসিত এক বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে ‘জাতির জনকের আহ্বানে দুর্নীতির বিরুদ্ধে একসাথে’ প্রত্যয়ে সরকার ও রাজনৈতিক নেতাসহ সব অংশীজনের প্রতি মুজিববর্ষের সব কার্যক্রমে অর্থায়ন ও আর্থিক লেনদেনে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিতের দাবি জানাচ্ছি।

সরকার ২০২০ সালের ১৭ মার্চ থেকে ২০২১ সালের ২৬ মার্চ পর্যন্ত মুজিববর্ষ পালন করবে। মুজিববর্ষে টিআইবির সুনির্দিষ্ট আহ্বানগুলো হলো:

- রাষ্ট্রকাঠামো ও রাষ্ট্র এবং সরকার পরিচালনার মূলধারায় দুর্নীতির প্রতি ‘শূন্য সহনশীলতা’ প্রতিষ্ঠিত করতে হবে, এবং রাজনীতি ও রাজনৈতিক অবস্থানকে দুর্নীতি, দুর্বৃত্তায়ন ও অবৈধ অর্থের প্রভাবমুক্ত করতে হবে।

- কোনো বিশেষ দল, গোষ্ঠী বা ব্যক্তির সুবিধাভোগের পুঁজি নয়, মুজিব বাংলাদেশের জাতির পিতা, এই সত্যকে ধারণ করে মুজিববর্ষকে বাস্তবেই একটি রাষ্ট্রীয় কর্মসূচি হিসেবে পালন করতে হবে। সব দলীয় অবস্থানের ঊর্ধ্বে থেকে মুজিববর্ষ পালন করতে হবে। সুযোগসন্ধানী মহলের ব্যক্তিগত সুবিধা অর্জনের হাতিয়ার হিসেবে এই মহান নেতার নাম অপব্যবহারের সব সুযোগ বন্ধ করতে হবে।

- মুজিববর্ষের উদ্যাপনকে কেন্দ্র করে সরকারিভাবে ব্যয়িত সব অর্থায়ন, অর্থের ব্যবহার এবং আর্থিক লেনদেনের তথ্য ওয়েবসাইট ও জনগণের জন্য সহজে অভিগম্য অন্যান্য মাধ্যমে স্বপ্রণোদিত প্রকাশসহ সর্বোচ্চ স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে হবে।

- মুজিববর্ষ উদ্যাপনে সব রাজনৈতিক দল ও অঙ্গসংগঠন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, ব্যক্তিমালিকানাধীন প্রতিষ্ঠান ও বেসরকারি সংস্থা এবং নাগরিক সংগঠন হতে বা এ ধরনের প্রতিষ্ঠান কর্তৃক আনুষ্ঠানিক বা অনানুষ্ঠানিকভাবে অর্থ সংগ্রহের ক্ষেত্রে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে বলপ্রয়োগ থেকে বিরত থাকতে হবে, এবং এক্ষেত্রেও সব আর্থিক লেনদেনের তথ্য স্বপ্রণোদিতভাবে প্রকাশ করতে হবে।

- ইতোমধ্যে মুজিববর্ষ উপলক্ষে ব্যয়িত সরকারি ও বেসরকারি পর্যায়ে সম্পৃক্ত সব আয়-ব্যয় ও আর্থিক লেনদেনের তথ্য স্বপ্রণোদিতভাবে প্রকাশ করতে হবে।

- মুজিববর্ষ উদ্যাপন জাতির পিতার অবদানের প্রতি সর্বোচ্চ শ্রদ্ধা ও মর্যাদার এক মহান উপলক্ষ, তার স্মৃতি ও অবদানের জন্য অমর্যাদাকর হতে পারে এমন সব সম্ভাবনা প্রতিহত করতে হবে।

- দুর্নীতি প্রতিরোধ, অংশগ্রহণমূলক ও টেকসই উন্নয়ন, জবাবদিহিমূলক সুশাসন এবং সব নাগরিকের ন্যায়বিচারে অভিগম্যতা নিশ্চিতে আইনী ও প্রাতিষ্ঠানিক সামর্থ্যের স্বচ্ছ, জবাবদিহিমূলক ও কার্যকর প্রয়োগের স্বার্থে প্রশাসন, আইন প্রয়োগ ও বিচারসংশ্লিষ্ট সব প্রতিষ্ঠানকে দলীয় রাজনৈতিক প্রভাবমুক্ত করতে হবে এবং সব পর্যায়ে সব প্রতিষ্ঠানের স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা ও কার্যকারীতা নিশ্চিত করতে হবে।

- দুর্নীতিসহ সব ধরনের অপরাধের ক্ষেত্রে বিচারহীনতার সংস্কৃতি উৎখাতসহ সরকারি সব সিদ্ধান্ত প্রক্রিয়াকে ক্ষমতাবান স্বার্থান্বেষী মহলের প্রভাবমুক্ত করে জনস্বার্থের প্রাধান্য নিশ্চিত করতে হবে।

- দুর্নীতি প্রতিরোধে দুদককে শক্তিশালী করতে রাজনৈতিক সদিচ্ছার কার্যকর প্রয়োগ নিশ্চিত করে প্রতিষ্ঠানটির ওপর সব প্রকার প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ সরকারি ও রাজনৈতিক প্রভাব বন্ধ করতে হবে। অন্যদিকে দুদকে নেতৃত্ব পর্যায়ে সৎসাহস, দৃঢ়তা ও নিরপেক্ষতার মাধ্যমে এর ওপর অর্পিত আইনী ও প্রাতিষ্ঠানিক দায়িত্ব পালনে দৃষ্টান্তমূলক কার্যকারীতা নিশ্চিত করতে হবে।

- বাকস্বাধীনতা, মতপ্রকাশের স্বাধীনতা, সংগঠিত হওয়ার স্বাধীনতা এবং গণমাধ্যমের স্বাধীনতার সাংবিধানিক অঙ্গীকার নিশ্চিত করতে হবে, এবং এসব অধিকার চর্চার জন্য ঝুঁকিপূর্ণ সব আইনের বিতর্কিত ধারাগুলোর সংশোধন করে ঢেলে সাজাতে হবে।

- জাতি, ধর্ম, বর্ণ, লিঙ্গ, বয়স, নৃতাত্ত্বিক, আদিবাসী ও বিভিন্ন প্রতিবন্ধকতা নির্বিশেষে সব নাগরিকের সমান অধিকার নিশ্চিত করতে হবে।

- সর্বোপরি জাতির পিতার আহ্বানে দুর্নীতি নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধে দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীঘোষিত ‘শূন্য সহনশীলতার’ রাজনৈতিক অঙ্গীকারের নির্মোহ প্রয়োগ করতে হবে। ‘কাউকে ছাড় দেওয়া যাবে না’ এই অঙ্গীকার বাস্তবায়নে দুর্নীতির দায়ে অভিযুক্তের পরিচয় ও অবস্থান নির্বিশেষে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তিসহ জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে হবে। সব পর্যায়ে জনগণের, বিশেষ করে তরুণ প্রজন্মের অংশগ্রহণ বৃদ্ধির উপযোগী পরিবেশ নিশ্চিত করে দুর্নীতিবিরোধী কার্যক্রমকে সামাজিক আন্দোলনে রূপান্তর করতে হবে।

১৭-০৩-২০২০ ১২:০৪ পূর্বাহ্ন প্রকাশিত হয়েছে


পাঠকের ফেসবুক মন্তব্যঃ

আজকের কণ্ঠঃ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

অন্যান্য খবরসমুহ
: আরো খরবসমুহ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ প্রকাশিত
ফেসবুকে আজকের কণ্ঠঃ
আজকের কণ্ঠঃ ফোকাস
বিজ্ঞাপন

ভিজিটর সংখ্যা
100
২৩ অক্টোবর, ২০২০ ০৮:১৮ পূর্বাহ্ন