7:04 am, Sunday, 21 April 2024

ডিজিটাল ইউনিয়ন গড়ার লক্ষ্যে কাজ করছেন দেবীগঞ্জ ইউপি চেয়ারম্যান

জনপ্রিয়তা ও প্রশংসায় ভাসছেন ৩নং দেবীগঞ্জ সদর ইউনিয়নের জনবান্ধব ইউপি চেয়ারম্যান আশরাফুল আলম (এমু)

 আতাউর রহমান

পঞ্চগড় জেলা দেবীগঞ্জ উপজেলার ৩নং সদর ইউনিয়নের একজন ক্লিনইমেজের মিষ্টভাষী,পরোপকারী, সাধারণ জনগণের আস্থার প্রতীক, দেবীগঞ্জ উপজেলা কৃষক লীগের বিপ্লবী সাধারন সম্পাদক মোঃ আশরাফুল আলম (এমু) । তিনি ইউনিয়নবাসীর কাছে জনপ্রিয় ও সফল চেয়ারম্যান হিসেবে সুনাম অর্জন করেছেন। মানবসেবা করাই তার মূল লক্ষ্য। এমন চিন্তা নিয়েই তিনি রাজনীতি শুরু করেন । তিনি রাত-দিন ঝড় বৃষ্টি তোয়াক্কা না করে সমানে জনসেবায় ও অসহায় গরিব মানুষের পাশে থেকে তিনি সাধারণ মানুষের আস্থার প্রতিক হিসাবে পরিচিতি পেয়েছেন।তার রাজনৈতিক জীবনের অধিকাংশ সময়েই রাজপথে আওয়ামী লীগের আন্দোলন সংগ্রাম সফল করতে প্রতিটি মুহূর্ত নিজেকে বিলিয়ে দিয়েছেন।

এ আওয়ামীলীগের নেতা রাজপথের দুর্দিনের লড়াকু সৈনিকের একজন ত্যাগী নেতা। এছাড়াও তার রয়েছে আরো একটি গুন তিনি মানুষের বিপদের কথা শুনলে কখনো ঘরে বসে থাকেন না। দলীয় নেতাকর্মীদের সুখে-দুঃখে সব সময়েই পাশে থাকেন। এ কারনে দলীয়ভাবে ও তিনি সকলের কাছে প্রিয় । অগুনিত গুনে গুনোনিত এ নেতার বর্তমানে সমাজসেবা,জনসেবা ও সামাজিক সংগঠন সহ প্রতিটি কাজই প্রশংসনীয়। এজন্য ৩নং দেবীগঞ্জ সদর ইউনিয়নের মানুষের আস্থার প্রতিক হয়ে প্রশংসায় ভাসছেন। জনপ্রিয় সফল চেয়ারম্যান আশরাফুল আলম(এমু) ৩নং দেবীগঞ্জ সদর ইউনিয়নকে মাদক,জুয়া ও অনৈতিক কর্মকান্ড,সন্ত্রাস, ইভটিজিং, বাল্যবিয়ে, মুক্ত রোধে কাজ করে যাচ্ছেন।

একজন দক্ষ,বিচক্ষণ,নীতিবান,আওয়ামী লীগ নেতা, এমনটাই জানিয়েছেন ৩নং দেবীগঞ্জ সদর ইউনিয়নবাসী।তিনি ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্ন নায়ক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী জন নেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার লক্ষ্যে গ্রাম সরকার উন্নয়নের একটি মডেল রূপ লেখা হিসেবে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয় ব্যাপক উন্নয়নের ভূমিকা রাখছেন।এই প্রত্যাশায় ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যায় নিয়ে ৩নং দেবীগঞ্জ সদর ইউনিয়নকে আধুনিক ইউনিয়ন গড়ার স্বপ্ন দেখছেন বলে জানান এ বিশিষ্ট সমাজসেবক গরিব দুঃখী মেহনতী মানুষের আস্থার প্রতিক বর্তমান চেয়ারম্যান আশরাফুল আলম (এমু)তার দাবী, সুখ-দুঃখে সব সময় এলাকাবাসির পাশে আছি এবং থাকবো।

তার রাজনীতির বাহিরেও আলাদা একটি পরিচিতি রয়েছে। যেমন দলের জন্য ত্যাগী তদরূপ এলাকায় অন্যায়ের প্রতিবাদী হিসেবে রয়েছে সুনাম। ত্যাগের উদারন সৃষ্টি করা এই আওয়ামীলীগ নেতা কিভাবে এলাকার উন্নয়ন সাধন করা যায় সেই লক্ষ নিয়েই একাট্টা মাঠে থাকছেন। তিনি আরো বলেন আমার রাজনৈতিক অভিভাবক বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের, বাংলাদেশ সরকারের রেল পথ মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী এ্যাডভোকেট নুরুল ইসলাস সুজন এমপি মহোদয় এর নির্দেশনায় তিনি এলাকায় ব্যাপক সামাজিক সংগঠন সহ নানা উন্নয়ন ও সেবা মুলক কাজ করে যাচ্ছেন। তার বড় শক্তি জনগন, সাংগঠনিক কারিশমা ও পারিবারিকভাবে আ’লীগ পরিবারের সন্তান। দেবীগঞ্জ উপজেলার আলোকিত মুখ হিসেবে পরিচিত এ মানুষটি নিজের সাফল্যের কারণে বিভিন্ন সংগঠন কর্তৃক নানা ভাবে প্রশংসিতও হয়েছেন ।

অসংখ্য মসজিদ, মাদ্রাসা, স্কুল ও বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠণের অন্যতম পৃষ্ঠপোষক সমাজসেবী আশরাফুল আলম এমু । ব্যক্তি জীবনে তিনি অত্যন্ত নম্র, ভদ্র, সদাহাস্যোজ্জ্বল ও সাদা মনের মানুষ। তাঁর মাঝে কোন অহংকার নেই। নিরহংকারী এই মানুষটি দলমত নির্বিশেষে আজ সকলের কাছে প্রিয়। সর্বোপরি কাজ করছেন সাধারণ মানুষের কল্যাণের জন্য। বয়সে তরুন হলেও তিনি মনোবল হারাননি। এই সফল মানুষটি দলীয় নেতাকর্মী থেকে শুরু করে প্রতিটি মানুষের বিপদ আপদে ছুটে যান। এলাকায় তিনি একজন সাদা মনের উদার মানসিকতার ও দানশীল মানুষ হিসেবে ইতিমধ্যে পরিচিতি লাভ করেছেন। এলাকার সাধারণ মানুষের মতে, আমরা নেতা বা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বুঝিনা। আশরাফুল আলম এমু একজন ভাল মানুষ।

তিনি একজন কর্মঠ ব্যক্তি। তিনি চেয়ারম্যান পদে থাকলে আমাদের তথা এলাকার উপকার হবে। আমাদের দু:খ দুর্দশায় তাঁকে সহজেই পাশে পাওয়া যায়।  দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকেই উল্লেখযোগ্য উন্নয়নে অগ্রণী ভূমিকা রেখে সাধারণ মানুষের আস্থা অর্জনে সক্ষম হয়েছেন। এলাকার হতদরিদ্র মানুষের উন্নয়নে তাঁর নিরন্তর প্রয়াস সব মহলেই প্রশংসা কুঁড়িয়েছে। রাস্তা ঘাটের উন্নয়ন, শিক্ষা ও স্বাস্থ্য সেবায় বিশেষ অবদান, সামাজিক উন্নয়নসহ বিভিন্ন প্রকল্পের বাস্তবায়নে দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিয়ে এলাকায় নিজের মুখ উজ্জ্বল করেছেন। তার সাথে দলের ভাবমূর্তির উন্নয়ন হয়েছে।

এই ইউনিয়নের অসংখ্য মসজিদ, মাদ্রাসা, স্কুল ও বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠণের উন্নয়ন হয়েছে। ব্যক্তি জীবনে তিনি অত্যন্ত নম্র, ভদ্র, সদাহাস্যোজ্জ্বল ও সাদা মনের মানুষ। তার মাঝে কোন অহংকার নেই। নিরহংকারী এই মানুষটি আজ দলমত নির্বিশেষে সকলের কাছে প্রিয়। তিনি ছাত্রজীবন থেকে ছাত্রলীগ, যুবলীগ ও আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে সংস্পৃক্ত থেকে কাজ করছেন বঙ্গবন্ধু ও জননেত্রী প্রথানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নৌকা প্রতিক পেয়ে বিপুল ভোটে জয়লাভ করেছেন, প্রিয় ইউনিয়নকে উন্নয়নের মাষ্টার প্লানের আওতায় এনে ব্যাপক উন্নয়নমূলক কর্মসূচি হাতে নিয়েছিলেন। বলতে গেলে তিনি মেধা, মনন, কর্ম প্রয়াস, শ্রম ও অধ্যাবসায়ের মাধ্যমে ব্যবস্থাপনাগত দক্ষতা অর্জনের মধ্য দিয়ে নিজেকে গড়েছেন এক উজ্জ্বল অধ্যায়ে। তিনি সব সময় এলাকার গরীব দুঃখী মানুষের পাশে থেকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। সর্বপরী গরীব দুঃখী ও মেহনতী মানুষের প্রকৃত জনদরদী হিসেবে তিনি এলাকায় ব্যাপক পরিচিত ৩নং দেবীগঞ্জ সদর ইউনিয়নের জনপ্রিয় চেয়ারম্যান ।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপডেট সময় : 02:52:43 pm, Sunday, 9 July 2023
124 বার পড়া হয়েছে
error: Content is protected !!

ডিজিটাল ইউনিয়ন গড়ার লক্ষ্যে কাজ করছেন দেবীগঞ্জ ইউপি চেয়ারম্যান

জনপ্রিয়তা ও প্রশংসায় ভাসছেন ৩নং দেবীগঞ্জ সদর ইউনিয়নের জনবান্ধব ইউপি চেয়ারম্যান আশরাফুল আলম (এমু)

আপডেট সময় : 02:52:43 pm, Sunday, 9 July 2023

পঞ্চগড় জেলা দেবীগঞ্জ উপজেলার ৩নং সদর ইউনিয়নের একজন ক্লিনইমেজের মিষ্টভাষী,পরোপকারী, সাধারণ জনগণের আস্থার প্রতীক, দেবীগঞ্জ উপজেলা কৃষক লীগের বিপ্লবী সাধারন সম্পাদক মোঃ আশরাফুল আলম (এমু) । তিনি ইউনিয়নবাসীর কাছে জনপ্রিয় ও সফল চেয়ারম্যান হিসেবে সুনাম অর্জন করেছেন। মানবসেবা করাই তার মূল লক্ষ্য। এমন চিন্তা নিয়েই তিনি রাজনীতি শুরু করেন । তিনি রাত-দিন ঝড় বৃষ্টি তোয়াক্কা না করে সমানে জনসেবায় ও অসহায় গরিব মানুষের পাশে থেকে তিনি সাধারণ মানুষের আস্থার প্রতিক হিসাবে পরিচিতি পেয়েছেন।তার রাজনৈতিক জীবনের অধিকাংশ সময়েই রাজপথে আওয়ামী লীগের আন্দোলন সংগ্রাম সফল করতে প্রতিটি মুহূর্ত নিজেকে বিলিয়ে দিয়েছেন।

এ আওয়ামীলীগের নেতা রাজপথের দুর্দিনের লড়াকু সৈনিকের একজন ত্যাগী নেতা। এছাড়াও তার রয়েছে আরো একটি গুন তিনি মানুষের বিপদের কথা শুনলে কখনো ঘরে বসে থাকেন না। দলীয় নেতাকর্মীদের সুখে-দুঃখে সব সময়েই পাশে থাকেন। এ কারনে দলীয়ভাবে ও তিনি সকলের কাছে প্রিয় । অগুনিত গুনে গুনোনিত এ নেতার বর্তমানে সমাজসেবা,জনসেবা ও সামাজিক সংগঠন সহ প্রতিটি কাজই প্রশংসনীয়। এজন্য ৩নং দেবীগঞ্জ সদর ইউনিয়নের মানুষের আস্থার প্রতিক হয়ে প্রশংসায় ভাসছেন। জনপ্রিয় সফল চেয়ারম্যান আশরাফুল আলম(এমু) ৩নং দেবীগঞ্জ সদর ইউনিয়নকে মাদক,জুয়া ও অনৈতিক কর্মকান্ড,সন্ত্রাস, ইভটিজিং, বাল্যবিয়ে, মুক্ত রোধে কাজ করে যাচ্ছেন।

একজন দক্ষ,বিচক্ষণ,নীতিবান,আওয়ামী লীগ নেতা, এমনটাই জানিয়েছেন ৩নং দেবীগঞ্জ সদর ইউনিয়নবাসী।তিনি ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্ন নায়ক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী জন নেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার লক্ষ্যে গ্রাম সরকার উন্নয়নের একটি মডেল রূপ লেখা হিসেবে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয় ব্যাপক উন্নয়নের ভূমিকা রাখছেন।এই প্রত্যাশায় ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যায় নিয়ে ৩নং দেবীগঞ্জ সদর ইউনিয়নকে আধুনিক ইউনিয়ন গড়ার স্বপ্ন দেখছেন বলে জানান এ বিশিষ্ট সমাজসেবক গরিব দুঃখী মেহনতী মানুষের আস্থার প্রতিক বর্তমান চেয়ারম্যান আশরাফুল আলম (এমু)তার দাবী, সুখ-দুঃখে সব সময় এলাকাবাসির পাশে আছি এবং থাকবো।

তার রাজনীতির বাহিরেও আলাদা একটি পরিচিতি রয়েছে। যেমন দলের জন্য ত্যাগী তদরূপ এলাকায় অন্যায়ের প্রতিবাদী হিসেবে রয়েছে সুনাম। ত্যাগের উদারন সৃষ্টি করা এই আওয়ামীলীগ নেতা কিভাবে এলাকার উন্নয়ন সাধন করা যায় সেই লক্ষ নিয়েই একাট্টা মাঠে থাকছেন। তিনি আরো বলেন আমার রাজনৈতিক অভিভাবক বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের, বাংলাদেশ সরকারের রেল পথ মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী এ্যাডভোকেট নুরুল ইসলাস সুজন এমপি মহোদয় এর নির্দেশনায় তিনি এলাকায় ব্যাপক সামাজিক সংগঠন সহ নানা উন্নয়ন ও সেবা মুলক কাজ করে যাচ্ছেন। তার বড় শক্তি জনগন, সাংগঠনিক কারিশমা ও পারিবারিকভাবে আ’লীগ পরিবারের সন্তান। দেবীগঞ্জ উপজেলার আলোকিত মুখ হিসেবে পরিচিত এ মানুষটি নিজের সাফল্যের কারণে বিভিন্ন সংগঠন কর্তৃক নানা ভাবে প্রশংসিতও হয়েছেন ।

অসংখ্য মসজিদ, মাদ্রাসা, স্কুল ও বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠণের অন্যতম পৃষ্ঠপোষক সমাজসেবী আশরাফুল আলম এমু । ব্যক্তি জীবনে তিনি অত্যন্ত নম্র, ভদ্র, সদাহাস্যোজ্জ্বল ও সাদা মনের মানুষ। তাঁর মাঝে কোন অহংকার নেই। নিরহংকারী এই মানুষটি দলমত নির্বিশেষে আজ সকলের কাছে প্রিয়। সর্বোপরি কাজ করছেন সাধারণ মানুষের কল্যাণের জন্য। বয়সে তরুন হলেও তিনি মনোবল হারাননি। এই সফল মানুষটি দলীয় নেতাকর্মী থেকে শুরু করে প্রতিটি মানুষের বিপদ আপদে ছুটে যান। এলাকায় তিনি একজন সাদা মনের উদার মানসিকতার ও দানশীল মানুষ হিসেবে ইতিমধ্যে পরিচিতি লাভ করেছেন। এলাকার সাধারণ মানুষের মতে, আমরা নেতা বা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বুঝিনা। আশরাফুল আলম এমু একজন ভাল মানুষ।

তিনি একজন কর্মঠ ব্যক্তি। তিনি চেয়ারম্যান পদে থাকলে আমাদের তথা এলাকার উপকার হবে। আমাদের দু:খ দুর্দশায় তাঁকে সহজেই পাশে পাওয়া যায়।  দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকেই উল্লেখযোগ্য উন্নয়নে অগ্রণী ভূমিকা রেখে সাধারণ মানুষের আস্থা অর্জনে সক্ষম হয়েছেন। এলাকার হতদরিদ্র মানুষের উন্নয়নে তাঁর নিরন্তর প্রয়াস সব মহলেই প্রশংসা কুঁড়িয়েছে। রাস্তা ঘাটের উন্নয়ন, শিক্ষা ও স্বাস্থ্য সেবায় বিশেষ অবদান, সামাজিক উন্নয়নসহ বিভিন্ন প্রকল্পের বাস্তবায়নে দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিয়ে এলাকায় নিজের মুখ উজ্জ্বল করেছেন। তার সাথে দলের ভাবমূর্তির উন্নয়ন হয়েছে।

এই ইউনিয়নের অসংখ্য মসজিদ, মাদ্রাসা, স্কুল ও বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠণের উন্নয়ন হয়েছে। ব্যক্তি জীবনে তিনি অত্যন্ত নম্র, ভদ্র, সদাহাস্যোজ্জ্বল ও সাদা মনের মানুষ। তার মাঝে কোন অহংকার নেই। নিরহংকারী এই মানুষটি আজ দলমত নির্বিশেষে সকলের কাছে প্রিয়। তিনি ছাত্রজীবন থেকে ছাত্রলীগ, যুবলীগ ও আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে সংস্পৃক্ত থেকে কাজ করছেন বঙ্গবন্ধু ও জননেত্রী প্রথানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নৌকা প্রতিক পেয়ে বিপুল ভোটে জয়লাভ করেছেন, প্রিয় ইউনিয়নকে উন্নয়নের মাষ্টার প্লানের আওতায় এনে ব্যাপক উন্নয়নমূলক কর্মসূচি হাতে নিয়েছিলেন। বলতে গেলে তিনি মেধা, মনন, কর্ম প্রয়াস, শ্রম ও অধ্যাবসায়ের মাধ্যমে ব্যবস্থাপনাগত দক্ষতা অর্জনের মধ্য দিয়ে নিজেকে গড়েছেন এক উজ্জ্বল অধ্যায়ে। তিনি সব সময় এলাকার গরীব দুঃখী মানুষের পাশে থেকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। সর্বপরী গরীব দুঃখী ও মেহনতী মানুষের প্রকৃত জনদরদী হিসেবে তিনি এলাকায় ব্যাপক পরিচিত ৩নং দেবীগঞ্জ সদর ইউনিয়নের জনপ্রিয় চেয়ারম্যান ।