8:19 am, Friday, 19 April 2024

নৌকায় ভোট দিলে দেশের উন্নয়ন হয়” মানুষ নিরাপদে থাকতে পারে।

সোহরাব হোসেন বরগুনা প্রতিনিধি

 

বরগুনার মানুষের কষ্টে থাকা মানেই আমি কষ্টে থাকা বললেন – এমপি শম্ভু

সোহরাব বরগুনা সংবাদদাতা:

সাংবাদিকরা সৌজন্য সাক্ষাৎকালে বরগুনা-১ আসনের সংসদ সদস্য ও মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি, জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি, সাবেক মন্ত্রী, এডভোকেট ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভু এমপি বলেছেন , পায়রা ও বিষ খালি নদীবেষ্টিত দেশের একমাত্র সর্ববৃহৎ দ্বীপজেলা বরগুনা এক সময়ে খ্যাতি ছিল ধান সুপারি আর ইলিশের ভাণ্ডার হিসেবে। কিন্তু ধান সুপারি আর ইলিশ এই তিনের মধ্যে এখন আর এই জেলার সীমাবদ্ধতা নেই। এখানে অনেক কর্মসংস্থান হয়েছে , এতে বেকারত্ব দূর হয়েছে। দেশের সর্বদক্ষিণের এই জেলা এখন বাংলাদেশের একটি সম্ভাবনাময় জেলায় পরিণত হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ সরকারের টানা তিন মেয়াদে নতুন নতুন প্রকল্প আর উন্নয়নের জোয়ারে একদিকে যেমন এখানকার দৃশ্যপট বদলে গেছে, অন্যদিকে সৃষ্টি হচ্ছে বেকার যুবকদের কর্মস্থান। সেই উন্নয়নের ছোঁয়া শুধু শহরই নয় পৌঁছে গেছে প্রত্যন্ত গ্রাম গঞ্জেও। এমনকি এক সময়ের কাল্পনিক স্বপ্নও বাস্তবে রূপ নিয়েছে। জেলার মূল ভূ-খণ্ড থেকে বিচ্ছিন্ন দুর্গম চরাঞ্চলেও পৌঁছে গেছে বিদ্যুত সুবিধা। এখন দিনের আলো শেষে রাতের আঁধারে বিদ্যুতের আলোতে আলোকিত হয়ে উঠে মানুষের ঘরবাড়ি। এতে করে ঘুচে গেছে শহর-গ্রামের পার্থক্য। যা ছিল এখানকার মানুষের জন্য এক অকল্পনীয় অধ্যায়। এছাড়াও জেলার সর্বদক্ষিণের তালতলীর সাগর মোহনার দ্বীপ প্রাকৃতিক সৌন্দর্যকে কাজে লাগিয়ে সরকারী নানা প্রকল্প বাস্তবায়নের মাধ্যমে ইতোমধ্যে সেখানে গড়ে উঠেছে পর্যটন কেন্দ্র। যা ভ্রমণপিপাসু পর্যটকদের কাছে নয়নাভিরাম পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে পরিণত হয়েছে।

পাশাপাশি নদীর ভয়াবহ ভাঙ্গন থেকে রক্ষা পেয়েছে বরগুনার ভাঙ্গন কবলিত এলাকাবাসী। শম্ভু এমপি বলেন , নৌকা মানেই বছরে প্রথম দিনে বিনামূল্যে বই পাওয়া, নৌকা মানে মহাকাশে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট ঘোরা, নৌকা মানে মেট্রোরেলে করে সুখে ঘোরা, নৌকা মানে পদ্মাসেতু হয়ে কয়েক মিনিটে পার হওয়া।তিনি বলেন, এটা সেই নৌকা, যে নৌকা মানুষকে সুখ দিয়েছে, শান্তি দিয়েছে। আওয়ামী লীগের যে প্রতীক নিয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু একাধিকবার দলকে ক্ষমতায় নিয়ে এসেছিলেন, সেই নৌকায় থাকা মানেই মানুষের কল্যাণ। নৌকা মানেই উন্নয়ন, নৌকা মানেই সমৃদ্ধি।তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ উন্নয়নের রোল মডেল। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ আজ এগিয়ে যাচ্ছে। দেশের সকল স্থানের উন্নয়ন হয়েছে। তিনি বরগুনার বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকান্ডের ফিরিস্তি তুলে ধরে বলেন, দেশের এতো সব উন্নয়ন হয়েছে নৌকা মার্কায় ভোট দেয়ার জন্য। দেশের জনগন এখন শান্তিতে আছে। উন্নয়নের জন্য দেশের সকল নির্বাচনে নৌকা মার্কাকে বিজয়ী করতে হবে। নৌকার বিজয় নিশ্চিত করতে আওয়ামী লীগের অঙ্গ সংগঠনের নেতা-কর্মীদেরকে প্রতিটি ঘরে ঘরে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের বার্তা পৌঁছে দিতে হবে। জনগণকে বলতে হবে নৌকায় ভোট দিলে দেশের উন্নয়ন হয়, মানুষ সুখে-শান্তিতে নিরাপদে বসবাস করতে পারে। বরগুনার মানুষের কষ্টে থাকা মানেই আমি কষ্টে থাকা। কারণ এই মানুষদের সাথে আমার আত্মার সম্পর্ক যা কখনও ছিন্ন হওয়ার নয়। তিনি বলেন বরগুনা জেলার মানুষদের বহুকাঙ্খিত একটি স্বপ্ন হচ্ছে, এ জেলায় একটি স্বতন্ত্র বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপিত হবে। এর মাধ্যমে জেলার ছেলেমেয়েরা নিজ জেলাতেই বিশ্ববিদ্যালয়ে উচ্চশিক্ষা নেয়ার সুযোগ পাবে।এ স্বপ্ন বাস্তবায়নের পথটা সুগম করতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মেজো ছেলে শহীদ শেখ জামালের নামে একটি স্বতন্ত্র বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের জন্য গত ৭ সেপ্টেম্বর জাতীয় সংসদের ২৪ তম অধিবেশন চলাকালে প্রধানমন্ত্রী নিকট নিজ হাতে ডিও লেটার হস্তান্তর করেছি, সংসদ অধিবেশন চলাকালীন সময়েই এ ডিও লেটারটি প্রধানমন্ত্রীর কাছে পেশ করা হয়। ওইসময়ে প্রধানমন্ত্রী প্রস্তাবটি তিনি সদয়দৃষ্টিতে বিবেচনা করবেন আশ্বস্ত করেছেন। এমপি বলেন প্রস্তাবিত বিশ্ববিদ্যালয়ের এই নামকরণটি (শহীদ লেফট্যানেন্ট শেখ জামাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়) আমি নিজেই করেছি। আমি সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পর কথা দিয়েছিলাম আমার নির্বাচনী এলাকাকে আর অবহেলিত থাকবে না। এটাকে আমি আধুনিক মডেল এলাকা হিসেবে তৈরি করব। আমার নির্বাচনী পুরো এলাকায় জুড়ে আমি উন্নয়ন করছি। যেখানে রাস্তা নেই সেখানে রাস্তা নির্মাণ করছি। আমি এই এলাকার মানুষের ভালোবাসা নিয়ে বাচঁতে চাই। আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী, দল আমাকে মনোনয়ন দিলে বরগুনার জনগণকে সাথে নিয়ে বিপুল ভোটে নির্বাচিত হয়ে বরগুনার উন্নয়ন করতে চাই।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপডেট সময় : 11:33:57 am, Saturday, 9 September 2023
54 বার পড়া হয়েছে
error: Content is protected !!

নৌকায় ভোট দিলে দেশের উন্নয়ন হয়” মানুষ নিরাপদে থাকতে পারে।

আপডেট সময় : 11:33:57 am, Saturday, 9 September 2023

 

বরগুনার মানুষের কষ্টে থাকা মানেই আমি কষ্টে থাকা বললেন – এমপি শম্ভু

সোহরাব বরগুনা সংবাদদাতা:

সাংবাদিকরা সৌজন্য সাক্ষাৎকালে বরগুনা-১ আসনের সংসদ সদস্য ও মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি, জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি, সাবেক মন্ত্রী, এডভোকেট ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভু এমপি বলেছেন , পায়রা ও বিষ খালি নদীবেষ্টিত দেশের একমাত্র সর্ববৃহৎ দ্বীপজেলা বরগুনা এক সময়ে খ্যাতি ছিল ধান সুপারি আর ইলিশের ভাণ্ডার হিসেবে। কিন্তু ধান সুপারি আর ইলিশ এই তিনের মধ্যে এখন আর এই জেলার সীমাবদ্ধতা নেই। এখানে অনেক কর্মসংস্থান হয়েছে , এতে বেকারত্ব দূর হয়েছে। দেশের সর্বদক্ষিণের এই জেলা এখন বাংলাদেশের একটি সম্ভাবনাময় জেলায় পরিণত হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ সরকারের টানা তিন মেয়াদে নতুন নতুন প্রকল্প আর উন্নয়নের জোয়ারে একদিকে যেমন এখানকার দৃশ্যপট বদলে গেছে, অন্যদিকে সৃষ্টি হচ্ছে বেকার যুবকদের কর্মস্থান। সেই উন্নয়নের ছোঁয়া শুধু শহরই নয় পৌঁছে গেছে প্রত্যন্ত গ্রাম গঞ্জেও। এমনকি এক সময়ের কাল্পনিক স্বপ্নও বাস্তবে রূপ নিয়েছে। জেলার মূল ভূ-খণ্ড থেকে বিচ্ছিন্ন দুর্গম চরাঞ্চলেও পৌঁছে গেছে বিদ্যুত সুবিধা। এখন দিনের আলো শেষে রাতের আঁধারে বিদ্যুতের আলোতে আলোকিত হয়ে উঠে মানুষের ঘরবাড়ি। এতে করে ঘুচে গেছে শহর-গ্রামের পার্থক্য। যা ছিল এখানকার মানুষের জন্য এক অকল্পনীয় অধ্যায়। এছাড়াও জেলার সর্বদক্ষিণের তালতলীর সাগর মোহনার দ্বীপ প্রাকৃতিক সৌন্দর্যকে কাজে লাগিয়ে সরকারী নানা প্রকল্প বাস্তবায়নের মাধ্যমে ইতোমধ্যে সেখানে গড়ে উঠেছে পর্যটন কেন্দ্র। যা ভ্রমণপিপাসু পর্যটকদের কাছে নয়নাভিরাম পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে পরিণত হয়েছে।

পাশাপাশি নদীর ভয়াবহ ভাঙ্গন থেকে রক্ষা পেয়েছে বরগুনার ভাঙ্গন কবলিত এলাকাবাসী। শম্ভু এমপি বলেন , নৌকা মানেই বছরে প্রথম দিনে বিনামূল্যে বই পাওয়া, নৌকা মানে মহাকাশে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট ঘোরা, নৌকা মানে মেট্রোরেলে করে সুখে ঘোরা, নৌকা মানে পদ্মাসেতু হয়ে কয়েক মিনিটে পার হওয়া।তিনি বলেন, এটা সেই নৌকা, যে নৌকা মানুষকে সুখ দিয়েছে, শান্তি দিয়েছে। আওয়ামী লীগের যে প্রতীক নিয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু একাধিকবার দলকে ক্ষমতায় নিয়ে এসেছিলেন, সেই নৌকায় থাকা মানেই মানুষের কল্যাণ। নৌকা মানেই উন্নয়ন, নৌকা মানেই সমৃদ্ধি।তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ উন্নয়নের রোল মডেল। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ আজ এগিয়ে যাচ্ছে। দেশের সকল স্থানের উন্নয়ন হয়েছে। তিনি বরগুনার বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকান্ডের ফিরিস্তি তুলে ধরে বলেন, দেশের এতো সব উন্নয়ন হয়েছে নৌকা মার্কায় ভোট দেয়ার জন্য। দেশের জনগন এখন শান্তিতে আছে। উন্নয়নের জন্য দেশের সকল নির্বাচনে নৌকা মার্কাকে বিজয়ী করতে হবে। নৌকার বিজয় নিশ্চিত করতে আওয়ামী লীগের অঙ্গ সংগঠনের নেতা-কর্মীদেরকে প্রতিটি ঘরে ঘরে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের বার্তা পৌঁছে দিতে হবে। জনগণকে বলতে হবে নৌকায় ভোট দিলে দেশের উন্নয়ন হয়, মানুষ সুখে-শান্তিতে নিরাপদে বসবাস করতে পারে। বরগুনার মানুষের কষ্টে থাকা মানেই আমি কষ্টে থাকা। কারণ এই মানুষদের সাথে আমার আত্মার সম্পর্ক যা কখনও ছিন্ন হওয়ার নয়। তিনি বলেন বরগুনা জেলার মানুষদের বহুকাঙ্খিত একটি স্বপ্ন হচ্ছে, এ জেলায় একটি স্বতন্ত্র বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপিত হবে। এর মাধ্যমে জেলার ছেলেমেয়েরা নিজ জেলাতেই বিশ্ববিদ্যালয়ে উচ্চশিক্ষা নেয়ার সুযোগ পাবে।এ স্বপ্ন বাস্তবায়নের পথটা সুগম করতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মেজো ছেলে শহীদ শেখ জামালের নামে একটি স্বতন্ত্র বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের জন্য গত ৭ সেপ্টেম্বর জাতীয় সংসদের ২৪ তম অধিবেশন চলাকালে প্রধানমন্ত্রী নিকট নিজ হাতে ডিও লেটার হস্তান্তর করেছি, সংসদ অধিবেশন চলাকালীন সময়েই এ ডিও লেটারটি প্রধানমন্ত্রীর কাছে পেশ করা হয়। ওইসময়ে প্রধানমন্ত্রী প্রস্তাবটি তিনি সদয়দৃষ্টিতে বিবেচনা করবেন আশ্বস্ত করেছেন। এমপি বলেন প্রস্তাবিত বিশ্ববিদ্যালয়ের এই নামকরণটি (শহীদ লেফট্যানেন্ট শেখ জামাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়) আমি নিজেই করেছি। আমি সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পর কথা দিয়েছিলাম আমার নির্বাচনী এলাকাকে আর অবহেলিত থাকবে না। এটাকে আমি আধুনিক মডেল এলাকা হিসেবে তৈরি করব। আমার নির্বাচনী পুরো এলাকায় জুড়ে আমি উন্নয়ন করছি। যেখানে রাস্তা নেই সেখানে রাস্তা নির্মাণ করছি। আমি এই এলাকার মানুষের ভালোবাসা নিয়ে বাচঁতে চাই। আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী, দল আমাকে মনোনয়ন দিলে বরগুনার জনগণকে সাথে নিয়ে বিপুল ভোটে নির্বাচিত হয়ে বরগুনার উন্নয়ন করতে চাই।