11:05 am, Wednesday, 22 May 2024

বরগুনার সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, মাদক নির্মূলে বদ্ধপরিকর (ওসি) একেএম মিজানুর রহমান 

সোহরাব হোসেন বরগুনা প্রতিনিধি

 

রাষ্ট্রের পবিত্র পোষাক পড়ে রাষ্ট্র কর্তৃক অর্পিত দায়িত্ব পালন করতে আমি বদ্ধপরিকর বললেন বরগুনা সদর থানার (ওসি) একেএম মিজানুর রহমান। সাংবাদিকদের সৌজন্য সাক্ষাতে এ কথা বলেন। তিনি বলেন সন্ত্রাস, মাদক, জঙ্গিমুক্ত লাল সবুজের সোনার বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে আমি প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। আমি আরো প্রতিজ্ঞাবদ্ধ, জনগনের দোড় গোড়ায় পুলিশি সেবা পৌঁছে দেয়ার জন্য অতন্দ্র প্রহরী হিসেবে আমি প্রস্তত। সেবাই পুলিশের ধর্ম। পুলিশের কাজ এক কথায় বুঝাতে গেলে তাই বলা হয়। কিন্তু আইন ও বিধিমালা দ্বারা পরিচালিত নিয়ন্ত্রিত পুলিশের কাজ মূলতঃ অপরাধ প্রতিরোধ ও প্রতিকার এবং আইন শৃঙ্খলা রক্ষা করা। আইনের আওতায় প্রদত্ত দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করলে তা জনগনের সেবা করা হয়। পুলিশের কাজের অন্যতম বৈশিষ্ট্য হচ্ছে জনসম্পৃক্ততা। জনগণ ও পুলিশের সম্মিলিত প্রচেষ্টার মধ্যে দিয়ে একটি টেকসই নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করার মাধ্যমেই নিরাপদ বরগুনা সদর থানা বাস্তবায়নে আমি অঙ্গীকারবদ্ধ। এ অঙ্গীকার বাস্তবায়নে জনগনের অংশ গ্রহন যেমন দরকার তেমনি দরকার গনমাধ্যমের সহযোগীতা। পুলিশের সেবাকে আরো গতিশীল ও কার্যকর করে জনগনের নিকট সেবা পৌছে দেয়ার লক্ষ্যে সম্প্রতি জনসচেতনতামূলক বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণ করেছি। ওসির সঙ্গে একান্ত আলাপচারিতায় সাংবাদিকদের একথা বলেন (ওসি) একেএম মিজানুর রহমান।

বরগুনা সদর উপজেলার প্রতিটি মানুষের মনে পুলিশ কতটুকু জায়গা করে নিতে পেরেছে তা তুলে ধরেছেন সাংবাদিকরা । বরগুনা জেলার পুলিশ সুপার জনাব মোঃ আবদুস ছালাম দায়িত্ব গ্রহনের পর নিজ কর্মদক্ষতা ও অভিজ্ঞতার আলোকে বরগুনা জেলা থেকে বিভিন্ন ধরণের অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড হ্রাসকল্পে যুগোপযোগী পদক্ষেপ গ্রহন করে প্রায় শূন্যের কোঠায় নিয়ে এসেছেন। সম্প্রতি বরগুনার আলোচিত কয়েকটি ঘটনায় মাঠ পর্যায়ে নিজেই তদন্ত করে জনমনে যায়গা করে নিয়েছেন পুলিশ সুপার। তারিই দিকনির্দেশনায় ওসি একেএম মিজানুর রহমান শুধু তাই নয়, জনবান্ধব পুলিশ প্রশাসন গঠন ও জনসেবামূলক কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে বরগুনা সদর থানাকে সারা বাংলাদেশের মানুষের কাছে রোল মডেল হিসেবে উপস্থাপন করেছেন। সন্ত্রাস ও মাদক এর বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি অবলম্বন করে বরগুনাবাসীর নয়নমণিতে পরিণত হয়েছেন ওসি একেএম মিজানুর রহমান। রাষ্ট্রের জনগণের জানমালের হেফাজত, শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষা এবং জনবান্ধব পুলিশ প্রশাসন গড়ে তুলে জনগণের সাথে রচনার মাধ্যমে কার্যকর পুলিশ প্রশাসন গড়ে তুলে জনগণকে রাষ্ট্র প্রদত্ত সেবা প্রদান করে জনগণের হৃদয়ে ঠাঁই করে নেয়ার মাঝেই রয়েছে একজন চৌকস, দক্ষ ও অভিজ্ঞ পুলিশ কর্মকর্তার সফলতা। সে দুরহ কাজটি অত্যন্ত সফলতার সাথে করতে সক্ষম হয়েছেন সদর থানার ওসি। স্বমহিমায় নিজে যেমন ভাস্বর হয়েছেন ঠিক তেমনি ভাস্বরিত করেছেন বরগুনাবাসীকে। সদর থানায় দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকে সাফল্য ও নিষ্ঠার সাথে রাষ্ট্র অর্পিত যে কোন কাজ সুনিপুন ও দক্ষতার সাথে সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে বদ্ধপরিকর ছিলেন তিনি। দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকে বরগুনার আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির সার্বিক উন্নয়নের জন্য কার্যকর বাস্তব সম্মত পদক্ষেপ গ্রহণ করেন।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপডেট সময় : 10:41:36 am, Monday, 2 October 2023
80 বার পড়া হয়েছে
error: Content is protected !!

বরগুনার সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, মাদক নির্মূলে বদ্ধপরিকর (ওসি) একেএম মিজানুর রহমান 

আপডেট সময় : 10:41:36 am, Monday, 2 October 2023

 

রাষ্ট্রের পবিত্র পোষাক পড়ে রাষ্ট্র কর্তৃক অর্পিত দায়িত্ব পালন করতে আমি বদ্ধপরিকর বললেন বরগুনা সদর থানার (ওসি) একেএম মিজানুর রহমান। সাংবাদিকদের সৌজন্য সাক্ষাতে এ কথা বলেন। তিনি বলেন সন্ত্রাস, মাদক, জঙ্গিমুক্ত লাল সবুজের সোনার বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে আমি প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। আমি আরো প্রতিজ্ঞাবদ্ধ, জনগনের দোড় গোড়ায় পুলিশি সেবা পৌঁছে দেয়ার জন্য অতন্দ্র প্রহরী হিসেবে আমি প্রস্তত। সেবাই পুলিশের ধর্ম। পুলিশের কাজ এক কথায় বুঝাতে গেলে তাই বলা হয়। কিন্তু আইন ও বিধিমালা দ্বারা পরিচালিত নিয়ন্ত্রিত পুলিশের কাজ মূলতঃ অপরাধ প্রতিরোধ ও প্রতিকার এবং আইন শৃঙ্খলা রক্ষা করা। আইনের আওতায় প্রদত্ত দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করলে তা জনগনের সেবা করা হয়। পুলিশের কাজের অন্যতম বৈশিষ্ট্য হচ্ছে জনসম্পৃক্ততা। জনগণ ও পুলিশের সম্মিলিত প্রচেষ্টার মধ্যে দিয়ে একটি টেকসই নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করার মাধ্যমেই নিরাপদ বরগুনা সদর থানা বাস্তবায়নে আমি অঙ্গীকারবদ্ধ। এ অঙ্গীকার বাস্তবায়নে জনগনের অংশ গ্রহন যেমন দরকার তেমনি দরকার গনমাধ্যমের সহযোগীতা। পুলিশের সেবাকে আরো গতিশীল ও কার্যকর করে জনগনের নিকট সেবা পৌছে দেয়ার লক্ষ্যে সম্প্রতি জনসচেতনতামূলক বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণ করেছি। ওসির সঙ্গে একান্ত আলাপচারিতায় সাংবাদিকদের একথা বলেন (ওসি) একেএম মিজানুর রহমান।

বরগুনা সদর উপজেলার প্রতিটি মানুষের মনে পুলিশ কতটুকু জায়গা করে নিতে পেরেছে তা তুলে ধরেছেন সাংবাদিকরা । বরগুনা জেলার পুলিশ সুপার জনাব মোঃ আবদুস ছালাম দায়িত্ব গ্রহনের পর নিজ কর্মদক্ষতা ও অভিজ্ঞতার আলোকে বরগুনা জেলা থেকে বিভিন্ন ধরণের অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড হ্রাসকল্পে যুগোপযোগী পদক্ষেপ গ্রহন করে প্রায় শূন্যের কোঠায় নিয়ে এসেছেন। সম্প্রতি বরগুনার আলোচিত কয়েকটি ঘটনায় মাঠ পর্যায়ে নিজেই তদন্ত করে জনমনে যায়গা করে নিয়েছেন পুলিশ সুপার। তারিই দিকনির্দেশনায় ওসি একেএম মিজানুর রহমান শুধু তাই নয়, জনবান্ধব পুলিশ প্রশাসন গঠন ও জনসেবামূলক কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে বরগুনা সদর থানাকে সারা বাংলাদেশের মানুষের কাছে রোল মডেল হিসেবে উপস্থাপন করেছেন। সন্ত্রাস ও মাদক এর বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি অবলম্বন করে বরগুনাবাসীর নয়নমণিতে পরিণত হয়েছেন ওসি একেএম মিজানুর রহমান। রাষ্ট্রের জনগণের জানমালের হেফাজত, শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষা এবং জনবান্ধব পুলিশ প্রশাসন গড়ে তুলে জনগণের সাথে রচনার মাধ্যমে কার্যকর পুলিশ প্রশাসন গড়ে তুলে জনগণকে রাষ্ট্র প্রদত্ত সেবা প্রদান করে জনগণের হৃদয়ে ঠাঁই করে নেয়ার মাঝেই রয়েছে একজন চৌকস, দক্ষ ও অভিজ্ঞ পুলিশ কর্মকর্তার সফলতা। সে দুরহ কাজটি অত্যন্ত সফলতার সাথে করতে সক্ষম হয়েছেন সদর থানার ওসি। স্বমহিমায় নিজে যেমন ভাস্বর হয়েছেন ঠিক তেমনি ভাস্বরিত করেছেন বরগুনাবাসীকে। সদর থানায় দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকে সাফল্য ও নিষ্ঠার সাথে রাষ্ট্র অর্পিত যে কোন কাজ সুনিপুন ও দক্ষতার সাথে সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে বদ্ধপরিকর ছিলেন তিনি। দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকে বরগুনার আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির সার্বিক উন্নয়নের জন্য কার্যকর বাস্তব সম্মত পদক্ষেপ গ্রহণ করেন।