10:34 am, Wednesday, 22 May 2024

সদরপুরে নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে মা ইলিশ ধরার অপরাধে ৭ জেলেকে জরিমানা

তানভীর তুহিন, (ফরিদপুর) প্রতিনিধি:

ফরিদপুরের সদরপুরে নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে পদ্মায় মা ইলিশ ধরার অপরাধে ৭ জেলেকে ৫ হাজার টাকা করে সর্বমোট ৩৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। সেই সাথে আনুমানিক ৫০০০ মিটার কারেন্ট জাল ও ৬ কেজি ইলিশ মাছ জব্দ করা হয়েছে। পরবর্তীতে জাল গুলো আগুনে পুড়িয়ে ফেলা হয়েছে এবং ইলিশ মাছ গুলো স্থানীয় এতিমখানায় বিতরণ করা হয়েছে।

শুক্রবার (২০ অক্টোবর) রাতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার আহসান মাহমুদ রাসেল এবং উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) তানিয়া আক্তার মৎস্য সুরক্ষা ও সংরক্ষণ আইন ১৯৫০ এর ৫ (১) ধারা মোতাবেক এই জরিমানা করেন।

উক্ত অভিযানে সঙ্গী হিসেবে ছিলেন, উপজেলা মৎস কর্মকর্তা এস.এম জাহাঙ্গীর কবির ও সদরপুর থানা পুলিশ।

উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, ইলিশের নিরাপদ প্রজনন ও বংশবৃদ্ধির জন্য ১২ অক্টোবর থেকে ২ নভেম্বর পর্যন্ত ২২ দিন ইলিশ প্রজননক্ষেত্রে সব ধরনের মৎস্য আহরণ নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে সরকার। এ সময় দেশব্যাপী ইলিশ আহরণ, পরিবহন, মজুদ, বাজারজাতকরণ, ক্রয়-বিক্রয় ও বিনিময় সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ এবং দণ্ডনীয় অপরাধ। এ আইন অমান্যকারীকে কমপক্ষে ১ বছর থেকে সর্বোচ্চ ২ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড অথবা পাঁচ হাজার টাকা পর্যন্ত জরিমানা অথবা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত করা হবে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার আহসান মাহমুদ রাসেল বলেন, নিয়মিত আমাদের অভিযান অব্যহত রয়েছে। এই অভিযান আগামী ২ নভেম্বর পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপডেট সময় : 01:49:03 am, Saturday, 21 October 2023
67 বার পড়া হয়েছে
error: Content is protected !!

সদরপুরে নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে মা ইলিশ ধরার অপরাধে ৭ জেলেকে জরিমানা

আপডেট সময় : 01:49:03 am, Saturday, 21 October 2023

ফরিদপুরের সদরপুরে নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে পদ্মায় মা ইলিশ ধরার অপরাধে ৭ জেলেকে ৫ হাজার টাকা করে সর্বমোট ৩৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। সেই সাথে আনুমানিক ৫০০০ মিটার কারেন্ট জাল ও ৬ কেজি ইলিশ মাছ জব্দ করা হয়েছে। পরবর্তীতে জাল গুলো আগুনে পুড়িয়ে ফেলা হয়েছে এবং ইলিশ মাছ গুলো স্থানীয় এতিমখানায় বিতরণ করা হয়েছে।

শুক্রবার (২০ অক্টোবর) রাতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার আহসান মাহমুদ রাসেল এবং উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) তানিয়া আক্তার মৎস্য সুরক্ষা ও সংরক্ষণ আইন ১৯৫০ এর ৫ (১) ধারা মোতাবেক এই জরিমানা করেন।

উক্ত অভিযানে সঙ্গী হিসেবে ছিলেন, উপজেলা মৎস কর্মকর্তা এস.এম জাহাঙ্গীর কবির ও সদরপুর থানা পুলিশ।

উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, ইলিশের নিরাপদ প্রজনন ও বংশবৃদ্ধির জন্য ১২ অক্টোবর থেকে ২ নভেম্বর পর্যন্ত ২২ দিন ইলিশ প্রজননক্ষেত্রে সব ধরনের মৎস্য আহরণ নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে সরকার। এ সময় দেশব্যাপী ইলিশ আহরণ, পরিবহন, মজুদ, বাজারজাতকরণ, ক্রয়-বিক্রয় ও বিনিময় সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ এবং দণ্ডনীয় অপরাধ। এ আইন অমান্যকারীকে কমপক্ষে ১ বছর থেকে সর্বোচ্চ ২ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড অথবা পাঁচ হাজার টাকা পর্যন্ত জরিমানা অথবা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত করা হবে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার আহসান মাহমুদ রাসেল বলেন, নিয়মিত আমাদের অভিযান অব্যহত রয়েছে। এই অভিযান আগামী ২ নভেম্বর পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে।