8:08 pm, Thursday, 30 May 2024

পীরগঞ্জে সাংবাদিকদের মিথ্যা তথ্য দিয়ে ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে সংবাদ পরিবেশনের অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন

বিষ্ণুপদ রায় পীরগঞ্জ প্রতিনিধি :

ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জে সাংবাদিকদের কাছে মিথ্যা তথ্য সরবরাহ করে বিএডিসি’র এক সার ও বীজ ডিলারের বিরুদ্ধে মিথ্যা সংবাদ পরিবেশ করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

বৃহস্পতিবার সন্ধায় পীরগঞ্জ প্রেসক্লাব হলরুমে এক সংবাদ সম্মেলন এ অভিযোগ করেন উপজেলার বৈরচুনা এলাকার বীজ ও সার ডিলার রফিকুল ইসলাম।

সংবাদ মম্মেলনে রফিকুল ইসলাম বলেন, উপজেলার বৈরচুনা মৌজার সি এস ১৭৫ ও ১৭৬ নম্বর খতিয়ানের ২০২৭, ২০৩২ ও ২০৩৬ নং দাগের দুই একর ৪৯ শতক জমির ক্রয় সুত্রে মালিক তিনি। বৈরচুনা এলাকার জনৈক বিশ্বনাথ ও সাবেক ইউপি সদস্য মসহিন আলী জাল কাগজপত্র তৈরী করে ঐ জমি আত্মসাৎ করতে তাকে (রফিকুল ইসলাম) সহ তার পরিবারের লোক জনকে দীর্ঘদিন ধরে হয়রানি করে আসছেন। জাল দলিল দিয়ে ওই জমি জমার এস এ ২৫৯ ও ২৬০ নম্বর খতিয়ানে কৌশলে খগেন্দ্র নাথের নাম ঢুকানো হয়। এ নিয়ে ঠাকুরগাঁও আদালতে ৬৬/১৯৮৬ স্বত্ত্বের মামলা, আপিল ৪৪/১৯৯৪ মামলায় জাল দলিলের বিষয়টি প্রমানিত হওয়ায় আদালতের আদেশে এস.এ ২৫৯, ২৬০ খতিয়ানের মালিকানা পরিবর্তন করা হয়। সহকারি কমিশনার (ভূমি) বরাবর রফিকুল ইসলাম রেকর্ড সংশোধনের জন্য আবেদন করলে ২৫৯, ২৬০ খতিয়ানের মালিকের নাম সংশোধন করে ইউনিয়ন ভূমি অফিস খাজনা জমা নেয়।

এদিকে এসএ খতিয়ানের বিতর্কিত মালিক খগেনের ওয়ারিশের কাছ থেকে মহিসন আলীর ছেলে আব্দুস সামাদ জমি ক্রয় করে রফিকুল ইসলাম ও তার লোকজনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। পরবর্তীতে আদালত মামলাটি খারিজ করে দেন। মামলাটি আপিল করা হলেও পূর্বের রায় বহাল রাখে আদালত।

রফিকুল ইসলাম আরো বলেন, তার নামে খাজনা খারিজ করা ঐ জমিতে কিছু অসহায় পরিবার বসবাস করছেন। দীর্ঘদিন ধরে তাদের জমির উপর ঐসব পরিবার শান্তিপূর্ণ বসবাস করছেন। তাদের সাথে কোন দ্বন্দ্বে জড়াননি রফিকুল বা তার পরিবারের লোকজন। বিশ্বনাথ ও মহসিন বিষয়টি ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে ও নিজেদের স্বার্থ হাসিলের উদ্দেশ্যে অসহায় লোকদের বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে তার(রফিকুল)বিরুদ্ধে নানা ভাবে কুৎসা রটানো সহ তাকে বে কায়দায় ফেলতে সংবাদ সম্মেলন করে সাংবাদিকদের মিথ্যা তথ্য সরবরাহ করেন এবং ১৪ টি পরিবারকে উচ্ছেদের পায়তার করা সংক্রান্ত নাটক সাজিয়ে বিভিন্ন পত্রিকা ও অন লাইনে সংবাদ পরিবেশন করান। প্রকাশিত সংবাদগুলি আদৌ সত্য নয়। বিশ্বনাথ ও মহসিন দীর্ঘদিন ধরে রফিকুলের বিরুদ্ধে চক্রান্ত করে আসছেন। তারা সহজ সরল মানুষদের বাড়ি ঘড়ে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে অথবা নারী দিয়ে রফিকুলকে ফাসানোর হুমকিও দিচ্ছেন বলে সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

অভিযোগ বিষয়ে বিশ্বনাথ ও মহসিন বলেন, তাদের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ সত্য নয়।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপডেট সময় : 09:39:14 pm, Thursday, 16 November 2023
77 বার পড়া হয়েছে
error: Content is protected !!

পীরগঞ্জে সাংবাদিকদের মিথ্যা তথ্য দিয়ে ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে সংবাদ পরিবেশনের অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন

আপডেট সময় : 09:39:14 pm, Thursday, 16 November 2023

ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জে সাংবাদিকদের কাছে মিথ্যা তথ্য সরবরাহ করে বিএডিসি’র এক সার ও বীজ ডিলারের বিরুদ্ধে মিথ্যা সংবাদ পরিবেশ করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

বৃহস্পতিবার সন্ধায় পীরগঞ্জ প্রেসক্লাব হলরুমে এক সংবাদ সম্মেলন এ অভিযোগ করেন উপজেলার বৈরচুনা এলাকার বীজ ও সার ডিলার রফিকুল ইসলাম।

সংবাদ মম্মেলনে রফিকুল ইসলাম বলেন, উপজেলার বৈরচুনা মৌজার সি এস ১৭৫ ও ১৭৬ নম্বর খতিয়ানের ২০২৭, ২০৩২ ও ২০৩৬ নং দাগের দুই একর ৪৯ শতক জমির ক্রয় সুত্রে মালিক তিনি। বৈরচুনা এলাকার জনৈক বিশ্বনাথ ও সাবেক ইউপি সদস্য মসহিন আলী জাল কাগজপত্র তৈরী করে ঐ জমি আত্মসাৎ করতে তাকে (রফিকুল ইসলাম) সহ তার পরিবারের লোক জনকে দীর্ঘদিন ধরে হয়রানি করে আসছেন। জাল দলিল দিয়ে ওই জমি জমার এস এ ২৫৯ ও ২৬০ নম্বর খতিয়ানে কৌশলে খগেন্দ্র নাথের নাম ঢুকানো হয়। এ নিয়ে ঠাকুরগাঁও আদালতে ৬৬/১৯৮৬ স্বত্ত্বের মামলা, আপিল ৪৪/১৯৯৪ মামলায় জাল দলিলের বিষয়টি প্রমানিত হওয়ায় আদালতের আদেশে এস.এ ২৫৯, ২৬০ খতিয়ানের মালিকানা পরিবর্তন করা হয়। সহকারি কমিশনার (ভূমি) বরাবর রফিকুল ইসলাম রেকর্ড সংশোধনের জন্য আবেদন করলে ২৫৯, ২৬০ খতিয়ানের মালিকের নাম সংশোধন করে ইউনিয়ন ভূমি অফিস খাজনা জমা নেয়।

এদিকে এসএ খতিয়ানের বিতর্কিত মালিক খগেনের ওয়ারিশের কাছ থেকে মহিসন আলীর ছেলে আব্দুস সামাদ জমি ক্রয় করে রফিকুল ইসলাম ও তার লোকজনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। পরবর্তীতে আদালত মামলাটি খারিজ করে দেন। মামলাটি আপিল করা হলেও পূর্বের রায় বহাল রাখে আদালত।

রফিকুল ইসলাম আরো বলেন, তার নামে খাজনা খারিজ করা ঐ জমিতে কিছু অসহায় পরিবার বসবাস করছেন। দীর্ঘদিন ধরে তাদের জমির উপর ঐসব পরিবার শান্তিপূর্ণ বসবাস করছেন। তাদের সাথে কোন দ্বন্দ্বে জড়াননি রফিকুল বা তার পরিবারের লোকজন। বিশ্বনাথ ও মহসিন বিষয়টি ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে ও নিজেদের স্বার্থ হাসিলের উদ্দেশ্যে অসহায় লোকদের বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে তার(রফিকুল)বিরুদ্ধে নানা ভাবে কুৎসা রটানো সহ তাকে বে কায়দায় ফেলতে সংবাদ সম্মেলন করে সাংবাদিকদের মিথ্যা তথ্য সরবরাহ করেন এবং ১৪ টি পরিবারকে উচ্ছেদের পায়তার করা সংক্রান্ত নাটক সাজিয়ে বিভিন্ন পত্রিকা ও অন লাইনে সংবাদ পরিবেশন করান। প্রকাশিত সংবাদগুলি আদৌ সত্য নয়। বিশ্বনাথ ও মহসিন দীর্ঘদিন ধরে রফিকুলের বিরুদ্ধে চক্রান্ত করে আসছেন। তারা সহজ সরল মানুষদের বাড়ি ঘড়ে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে অথবা নারী দিয়ে রফিকুলকে ফাসানোর হুমকিও দিচ্ছেন বলে সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

অভিযোগ বিষয়ে বিশ্বনাথ ও মহসিন বলেন, তাদের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ সত্য নয়।