সংবাদ শিরোনাম ::
পঞ্চগড়ের বোদায় গাঁজাসহ ১ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার। পীরগঞ্জে ভাষার সাথে প্রতিযোগিতা  পীরগঞ্জে ইকো পাঠশালার বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগীতা ও পুরস্কার বিতরণ ফুলবাড়ী সরকারি কলেজ চত্বরে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন॥ ফুলবাড়ী বিজিবি সদর দপ্তরে ৭ কোটি ৫৯ লক্ষ ৩৬ হাজার টাকার অবৈধ্য মাদক ধ্বংস মোতাবেক অনুপ্রবেশকৃত হাতি দু’টি ভারতে ফেরত পাঠানোর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয় ঘোড়াঘাটে শহীদ দিবস পালিত আনভিল বাপ্পি ঘোড়াঘাট দেওয়ানগঞ্জে ২৬ তম ব্যবসায়ী কর্মচারী কল্যাণ সমিতির প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত পীরগঞ্জে ২১ ফেব্রুয়ারি উপলক্ষে চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা উপজেলা পরিষদ নির্বাচন ২০২৪ ফুলবাড়ীতে বাবুল,মঞ্জু,নীরুকে আওয়ামীলীগ সমর্থিত প্রার্থী হিসাবে ঘোষনা

নওগাঁয় গ্রেপ্তার আতঙ্কে কেউ বাড়িতে থাকছে না বিএনপির নেতা-কর্মী

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১২:০০:৪১ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৩ নভেম্বর ২০২৩ ২৩ বার পড়া হয়েছে
দৈনিক আজকের কন্ঠের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

নওগাঁ জেলা প্রতিনিধি:

এমন প্রেক্ষাপটে বিএনপির নেতা-কর্মীদের মধ্যে গ্রেপ্তার আতঙ্ক কাজ করছে। নাশকতা মামলা এবং পরবর্তীকালে অবরোধ কর্মসূচীকে কেন্দ্র করে মামলা হওয়ায় বিএনপির নেতাকর্মীরা বাড়িঘর ছেড়ে আত্মগোপনে রয়েছেন বলেও জানা যাচ্ছে। বিএনপি এই অভিযানকে বলছে তাদের বিরুদ্ধে সরকারের ‘পরিকল্পিত একটি ক্র্যাকডাউন’ চলছে।

২৮শে অক্টোবর ঢাকার সমাবেশে সহিংসতার পর থেকে জেলা ছাত্র দলের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক বাদশা বাড়িতে থাকছেন না।গ্রেপ্তার এড়াতে রাতে সপরিবারে নিরাপদ জায়গায় থাকার চেষ্টা করেন শাহাজান বাদশা। তার বিরুদ্ধে কোনো মামলা হয়নি, কিন্তু তার পরেও দলীয় পদে থাকা এবং পুলিশে তৎপরতা দেখে গ্রেপ্তার আতঙ্কে আছেন তিনি। তার ব্যাবহারিত মোবাইল ফোনও রেখেছেন বন্ধ। ফোন খোলা থাকলে যে কোন মুহূর্তে ফোন ট্রাগ করে পুলিশ ধরতে পারে।

বাদশা জানান, নওগাঁ জেলা বিএনপির বিভিন্ন স্তরের ছয় শতাধিক নেতাকর্মী জেলে আছেন। যারা বাইরে আছেন তারাও গ্রেপ্তার আতঙ্কে কেউ বাড়িঘরে থাকছে না।

পৌর যুবদলের যুগ্ম আহবায়ক একজন নেতা বলেন, তিনিও ২৮ অক্টোবর পর থেকে আত্মগোপনে আছেন। পৌর যুবদলের ৭১ জনের সদস্য কমিটি আছে। এর মধ্যে যুবদলের জেলার ৪ জন, নওগাঁ পৌর ১ জন কারাগারে। এখন তো মনে করেন বাসায় গিয়ে না পেলে বাসায় ছোট ভাই বা যদি উপযুক্ত সন্তান থাকে তাকেও পুলিশ গ্রেপ্তার করার চেষ্টা করে। এই জন্য পুরো পরিবারই গ্রেপ্তার আতঙ্কে আছে।

শুধু নওগাঁ নয়, দেশের সব জেলায় বিএনপি নেতা-কর্মীদের ক্ষেত্রে প্রায় একই রকম পরিস্থিতি বলেই জানা যাচ্ছে।

নওগাঁ সদর উপজেলায় মামলা এবং পুলিশের অভিযানে এই পর্যন্ত ৯৫ নেতা-কর্মীকে আটক করা হয়েছে বলে দাবি করছে বিএনপি ।

এ অবস্থায় পুলিশ বলছে, ২৮শে অক্টোবর সহিংসতা এবং অবরোধে সহিংসতার কারণে অভিযান চলছে। পুলিশ সুত্রে জানা গেছে, শুধু নওগাঁ সদর উপজেলায় গত ২৯ তারিখের ১ টি বিস্ফোরক মামলায় ৯৫ জন বিএনপি নেতা-কর্মী আটক করা হয়েছে বলে তথ্য দিচ্ছে পুলিশ।সহিংসতা, হরতাল কে কেন্দ্র করে যারা বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি ও মামলায় যারা জড়িত ছিল সবাইকে গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

error: Content is protected !!

নওগাঁয় গ্রেপ্তার আতঙ্কে কেউ বাড়িতে থাকছে না বিএনপির নেতা-কর্মী

আপডেট সময় : ১২:০০:৪১ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৩ নভেম্বর ২০২৩

নওগাঁ জেলা প্রতিনিধি:

এমন প্রেক্ষাপটে বিএনপির নেতা-কর্মীদের মধ্যে গ্রেপ্তার আতঙ্ক কাজ করছে। নাশকতা মামলা এবং পরবর্তীকালে অবরোধ কর্মসূচীকে কেন্দ্র করে মামলা হওয়ায় বিএনপির নেতাকর্মীরা বাড়িঘর ছেড়ে আত্মগোপনে রয়েছেন বলেও জানা যাচ্ছে। বিএনপি এই অভিযানকে বলছে তাদের বিরুদ্ধে সরকারের ‘পরিকল্পিত একটি ক্র্যাকডাউন’ চলছে।

২৮শে অক্টোবর ঢাকার সমাবেশে সহিংসতার পর থেকে জেলা ছাত্র দলের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক বাদশা বাড়িতে থাকছেন না।গ্রেপ্তার এড়াতে রাতে সপরিবারে নিরাপদ জায়গায় থাকার চেষ্টা করেন শাহাজান বাদশা। তার বিরুদ্ধে কোনো মামলা হয়নি, কিন্তু তার পরেও দলীয় পদে থাকা এবং পুলিশে তৎপরতা দেখে গ্রেপ্তার আতঙ্কে আছেন তিনি। তার ব্যাবহারিত মোবাইল ফোনও রেখেছেন বন্ধ। ফোন খোলা থাকলে যে কোন মুহূর্তে ফোন ট্রাগ করে পুলিশ ধরতে পারে।

বাদশা জানান, নওগাঁ জেলা বিএনপির বিভিন্ন স্তরের ছয় শতাধিক নেতাকর্মী জেলে আছেন। যারা বাইরে আছেন তারাও গ্রেপ্তার আতঙ্কে কেউ বাড়িঘরে থাকছে না।

পৌর যুবদলের যুগ্ম আহবায়ক একজন নেতা বলেন, তিনিও ২৮ অক্টোবর পর থেকে আত্মগোপনে আছেন। পৌর যুবদলের ৭১ জনের সদস্য কমিটি আছে। এর মধ্যে যুবদলের জেলার ৪ জন, নওগাঁ পৌর ১ জন কারাগারে। এখন তো মনে করেন বাসায় গিয়ে না পেলে বাসায় ছোট ভাই বা যদি উপযুক্ত সন্তান থাকে তাকেও পুলিশ গ্রেপ্তার করার চেষ্টা করে। এই জন্য পুরো পরিবারই গ্রেপ্তার আতঙ্কে আছে।

শুধু নওগাঁ নয়, দেশের সব জেলায় বিএনপি নেতা-কর্মীদের ক্ষেত্রে প্রায় একই রকম পরিস্থিতি বলেই জানা যাচ্ছে।

নওগাঁ সদর উপজেলায় মামলা এবং পুলিশের অভিযানে এই পর্যন্ত ৯৫ নেতা-কর্মীকে আটক করা হয়েছে বলে দাবি করছে বিএনপি ।

এ অবস্থায় পুলিশ বলছে, ২৮শে অক্টোবর সহিংসতা এবং অবরোধে সহিংসতার কারণে অভিযান চলছে। পুলিশ সুত্রে জানা গেছে, শুধু নওগাঁ সদর উপজেলায় গত ২৯ তারিখের ১ টি বিস্ফোরক মামলায় ৯৫ জন বিএনপি নেতা-কর্মী আটক করা হয়েছে বলে তথ্য দিচ্ছে পুলিশ।সহিংসতা, হরতাল কে কেন্দ্র করে যারা বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি ও মামলায় যারা জড়িত ছিল সবাইকে গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।