সংবাদ শিরোনাম ::
পঞ্চগড়ের বোদায় গাঁজাসহ ১ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার। পীরগঞ্জে ভাষার সাথে প্রতিযোগিতা  পীরগঞ্জে ইকো পাঠশালার বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগীতা ও পুরস্কার বিতরণ ফুলবাড়ী সরকারি কলেজ চত্বরে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন॥ ফুলবাড়ী বিজিবি সদর দপ্তরে ৭ কোটি ৫৯ লক্ষ ৩৬ হাজার টাকার অবৈধ্য মাদক ধ্বংস মোতাবেক অনুপ্রবেশকৃত হাতি দু’টি ভারতে ফেরত পাঠানোর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয় ঘোড়াঘাটে শহীদ দিবস পালিত আনভিল বাপ্পি ঘোড়াঘাট দেওয়ানগঞ্জে ২৬ তম ব্যবসায়ী কর্মচারী কল্যাণ সমিতির প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত পীরগঞ্জে ২১ ফেব্রুয়ারি উপলক্ষে চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা উপজেলা পরিষদ নির্বাচন ২০২৪ ফুলবাড়ীতে বাবুল,মঞ্জু,নীরুকে আওয়ামীলীগ সমর্থিত প্রার্থী হিসাবে ঘোষনা

মাঠ পর্যায়ে যে চিত্র দেখা যাচ্ছে-নির্বাচন নিয়ে

নিজস্ব প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ০৬:৫০:৩৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৫ নভেম্বর ২০২৩ ২১ বার পড়া হয়েছে
দৈনিক আজকের কন্ঠের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

আমরা চাই, নির্বাচনটা উৎসবমুখর পরিবেশে হোক। কিন্তু এখন দেখা যাচ্ছে, একপক্ষ নির্বাচনের আমেজে আছে, আরেক পক্ষ মাঠেই নেই। এভাবে তো জমে না।”- কথাগুলো বলছিলেন যশোর-৩ আসনের ভোটার জহিরুল ইসলাম।

বিয়াল্লিশ বছর বয়সী মিস্টার ইসলাম স্থানীয় একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরী করেন।

এবারের নির্বাচনের পরিবেশ নিয়ে জানতে চাইলে তিনি আক্ষেপ করে বলেন, “আগে আমরা দেখতাম যে, নির্বাচন আসলে ঈদের মতন একটা আনন্দ বিরাজ করতো। কিন্তু সেরকম পরিবেশ এখন দেখি না। সব দল নির্বাচনে অংশ নিলেই তখন উৎসবের আমেজটা আসবে।”

আগামী ৭ই জানুয়ারি বাংলাদেশের দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোট গ্রহণের তারিখ ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। নির্ধারিত সময়ে নির্বাচন অনুষ্ঠানে প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে নির্বাচন কমিশন।

কিন্তু দেশটির অন্যতম প্রধান রাজনৈতিক দল বিএনপি নির্বাচনে না থাকায় মাঠ পর্যায়ে এখন পর্যন্ত প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক নির্বাচনের কোন আমেজ দেখা যাচ্ছে না। ফলে নির্বাচন নিয়ে ভোটারদের মধ্যে খুব একটা আগ্রহ লক্ষ্য করা যাচ্ছে না।

“ধরেন আমরা এখানে দশটা লোক বসে আছি পাঁচ দলের। সবাই যদি ইলেকশন করতো, তাহলে সবার মনে একটা হাসিখুশি ভাব থাকতো। এখন আপনি একা ইলেকশন করতিছেন, তাইলে আমরা তো সব বোবা” – বলছিলেন ইউনুস আলী, যিনি পেশায় একজন কৃষক।

আর সংস্কৃতিকর্মী মশিউর রহমান বলেন, “নির্বাচন মানেই একটা উৎসবের ব্যাপার। সব দলের অংশগ্রহণ থাকলে এর সৌন্দর্য আরও বৃদ্ধি পায়। কাজেই সব দল যদি এই নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে, তখন ভোটাররা ভোট দিতে আগ্রহী হবে বলে আমি মনে করি।”

তবে অতীত অভিজ্ঞতা ভালো না হওয়ায় নির্বাচন নিয়ে অনেকের মধ্যে আতঙ্কও বিরাজ করছে, বিশেষ করে শ্রমজীবী মানুষের মধ্যে।

পরিবহন শ্রমিক জাকির হোসেন বলেন, “নির্বাচন আসলেই হরতাল-অবরোধ শুরু হয়। আমাদের রুটি-রুজির ক্ষতি হয়। কাজেই যত তাড়াতাড়ি নির্বাচন হয়ে যায় ততই আমাদের জন্য মঙ্গল।”

Collect by BBC

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

error: Content is protected !!

মাঠ পর্যায়ে যে চিত্র দেখা যাচ্ছে-নির্বাচন নিয়ে

আপডেট সময় : ০৬:৫০:৩৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৫ নভেম্বর ২০২৩

আমরা চাই, নির্বাচনটা উৎসবমুখর পরিবেশে হোক। কিন্তু এখন দেখা যাচ্ছে, একপক্ষ নির্বাচনের আমেজে আছে, আরেক পক্ষ মাঠেই নেই। এভাবে তো জমে না।”- কথাগুলো বলছিলেন যশোর-৩ আসনের ভোটার জহিরুল ইসলাম।

বিয়াল্লিশ বছর বয়সী মিস্টার ইসলাম স্থানীয় একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরী করেন।

এবারের নির্বাচনের পরিবেশ নিয়ে জানতে চাইলে তিনি আক্ষেপ করে বলেন, “আগে আমরা দেখতাম যে, নির্বাচন আসলে ঈদের মতন একটা আনন্দ বিরাজ করতো। কিন্তু সেরকম পরিবেশ এখন দেখি না। সব দল নির্বাচনে অংশ নিলেই তখন উৎসবের আমেজটা আসবে।”

আগামী ৭ই জানুয়ারি বাংলাদেশের দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোট গ্রহণের তারিখ ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। নির্ধারিত সময়ে নির্বাচন অনুষ্ঠানে প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে নির্বাচন কমিশন।

কিন্তু দেশটির অন্যতম প্রধান রাজনৈতিক দল বিএনপি নির্বাচনে না থাকায় মাঠ পর্যায়ে এখন পর্যন্ত প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক নির্বাচনের কোন আমেজ দেখা যাচ্ছে না। ফলে নির্বাচন নিয়ে ভোটারদের মধ্যে খুব একটা আগ্রহ লক্ষ্য করা যাচ্ছে না।

“ধরেন আমরা এখানে দশটা লোক বসে আছি পাঁচ দলের। সবাই যদি ইলেকশন করতো, তাহলে সবার মনে একটা হাসিখুশি ভাব থাকতো। এখন আপনি একা ইলেকশন করতিছেন, তাইলে আমরা তো সব বোবা” – বলছিলেন ইউনুস আলী, যিনি পেশায় একজন কৃষক।

আর সংস্কৃতিকর্মী মশিউর রহমান বলেন, “নির্বাচন মানেই একটা উৎসবের ব্যাপার। সব দলের অংশগ্রহণ থাকলে এর সৌন্দর্য আরও বৃদ্ধি পায়। কাজেই সব দল যদি এই নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে, তখন ভোটাররা ভোট দিতে আগ্রহী হবে বলে আমি মনে করি।”

তবে অতীত অভিজ্ঞতা ভালো না হওয়ায় নির্বাচন নিয়ে অনেকের মধ্যে আতঙ্কও বিরাজ করছে, বিশেষ করে শ্রমজীবী মানুষের মধ্যে।

পরিবহন শ্রমিক জাকির হোসেন বলেন, “নির্বাচন আসলেই হরতাল-অবরোধ শুরু হয়। আমাদের রুটি-রুজির ক্ষতি হয়। কাজেই যত তাড়াতাড়ি নির্বাচন হয়ে যায় ততই আমাদের জন্য মঙ্গল।”

Collect by BBC