2:08 pm, Friday, 21 June 2024

পীরগঞ্জে স্বাধীনতার ৫২ বছর পর শহিদ বুদ্ধিজীবী ডাঃ সুজাউদ্দীনের সমাধি সংরক্ষণ কাজ শুরু

লিমন সরকার (ঠাকুরগাঁও) জেলা প্রতিনিধি ঃ

স্বাধীনতার ৫২ বছর পর ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জে শহিদ বুদ্ধিজীবী ডাঃ সুজাউদ্দীন ও তার বড় ভাই মোজাফ্ফর হোসেনের সমাধি সংরক্ষণ কাজ শুরু হয়েছে। শনিবার দুপুরে বীরহলি গ্রামে উপজেলা প্রশাসনের তত্বাবধানে এ সংরক্ষন কাজের উদ্বোধন করা হয়। এ সময় উপজেলা চেয়ারম্যান আখতারুল ইসলাম, উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহরিয়ার নজির, পৌর মেয়র বীরমুক্তিযোদ্ধা ইকরামুল হক, পীরগঞ্জ সরকারী কলেজের অধ্যক্ষ ও শহিদ ডাঃ সুজাউদ্দীনের পুত্র বদরুল হুদা, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের সাবেক কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা আকতার হোসেন, সাবেক সহকারী কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা হাফিজুর রহমান, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা জাহাঙ্দীর হোেসেন, পীরগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি জয়নাল আবেদিন বাবুল, সাধারণ সম্পাদক নসরতে খোদা রানা, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য নুরনবী চঞ্চল, উপজেলার শাখার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আবু ফারাক এরশাদুল বার ডলার, সাংবাদিক দুলাল সরকার, আমিনুর রহমান হৃদয়, ফইদুল ইসলাম, লাতিফুর রহমান সহ স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য ১৯৭১ এর ১৭ এপ্রিল পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর হাতে নির্মম ভাবে শহিদ হন এ দুই শহিদ সহ ৭ জন। কয়েক বছর আগে এদের মধ্যে শহিদ অধ্যাপক গোলাম মোস্তফার সমাধি সংরক্ষন করা হলেও তখন থেকেই বাকি শহিদের সমাধি অরক্ষিত অবস্থায় পড়ে ছিল।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপডেট সময় : 05:39:14 pm, Saturday, 9 December 2023
78 বার পড়া হয়েছে
error: Content is protected !!

পীরগঞ্জে স্বাধীনতার ৫২ বছর পর শহিদ বুদ্ধিজীবী ডাঃ সুজাউদ্দীনের সমাধি সংরক্ষণ কাজ শুরু

আপডেট সময় : 05:39:14 pm, Saturday, 9 December 2023

স্বাধীনতার ৫২ বছর পর ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জে শহিদ বুদ্ধিজীবী ডাঃ সুজাউদ্দীন ও তার বড় ভাই মোজাফ্ফর হোসেনের সমাধি সংরক্ষণ কাজ শুরু হয়েছে। শনিবার দুপুরে বীরহলি গ্রামে উপজেলা প্রশাসনের তত্বাবধানে এ সংরক্ষন কাজের উদ্বোধন করা হয়। এ সময় উপজেলা চেয়ারম্যান আখতারুল ইসলাম, উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহরিয়ার নজির, পৌর মেয়র বীরমুক্তিযোদ্ধা ইকরামুল হক, পীরগঞ্জ সরকারী কলেজের অধ্যক্ষ ও শহিদ ডাঃ সুজাউদ্দীনের পুত্র বদরুল হুদা, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের সাবেক কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা আকতার হোসেন, সাবেক সহকারী কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা হাফিজুর রহমান, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা জাহাঙ্দীর হোেসেন, পীরগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি জয়নাল আবেদিন বাবুল, সাধারণ সম্পাদক নসরতে খোদা রানা, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য নুরনবী চঞ্চল, উপজেলার শাখার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আবু ফারাক এরশাদুল বার ডলার, সাংবাদিক দুলাল সরকার, আমিনুর রহমান হৃদয়, ফইদুল ইসলাম, লাতিফুর রহমান সহ স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য ১৯৭১ এর ১৭ এপ্রিল পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর হাতে নির্মম ভাবে শহিদ হন এ দুই শহিদ সহ ৭ জন। কয়েক বছর আগে এদের মধ্যে শহিদ অধ্যাপক গোলাম মোস্তফার সমাধি সংরক্ষন করা হলেও তখন থেকেই বাকি শহিদের সমাধি অরক্ষিত অবস্থায় পড়ে ছিল।