6:25 am, Tuesday, 23 July 2024

বিদায় বেলায় অশ্রুসিক্ত আটোয়ারীর ইউএনও

মো:জাহেরুল ইসলাম। (আটোয়ারী) প্রতিনিধি:

চোখে ছিলো পানি, তবুও স্নিগ্ধ হাসি দিয়ে সহকর্মী ও উপজেলার সকলের কাছ থেকে বিদায় নিলেন পঞ্চগড়ের আটোয়ারী,উপজেলার মানুষের প্রিয় ব্যক্তিত্ব সম্মানিত বিদায়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: মুশফিকুল আলম হালিম (Uno Atwari Panchagarh) মহোদয়। অফিসার্স ক্লাবের আয়োজনে বৃহস্পতিবার (৭ ডিসেম্বর ) দুপুরে উপজেলা পরিষদ হল রুমে বিদায় অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। বিদায় বেলায় দেখা গেলো এমন হৃদয় বিদারক চিত্র। বিদায় কালে বিদায়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: মুশফিকুল আলম হালিম বলেন, ভালো থাকুক আটোয়ারী উপজেলার প্রতিটি মানুষ। আমার কর্মজীবনে সেরা সঞ্চয় পেয়েছি আপনাদের ভালোবাসা। সরকারি চাকুরিজীবী হিসেবে বদলিজনিত কারণে কোনো জেলায় বা উপজেলায় স্থায়ী হওয়ার সুযোগ নেই প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের। উপজেলায় কর্মরত অবস্থায় সহকর্মী, জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের অনেক রকমের সহয়তা আমি পেয়েছি। কাজ আদায় করার জন্য হয়তো কারো বিরাগভাজন হয়েছি। খোলা চোখ দিয়ে সবকিছু দেখা যায় না। চোখের আড়ালেও অনেক কিছু থাকে। তবে নিজের অজান্তেও যদি কাউকে কষ্ট দিয়ে থাকি, তা মনে রাখবেন না। বিদায়বেলায় উপস্থিত বেশির ভাগ মানুষের চোখেই ছিলো জল। আবেগ থামাতে না পেরে কেঁদে ফেলেন অনেকেই। তৈরি হয় এক আবেগঘন পরিবেশ। জানা যায়, প্রায় দুই বছর ইউএনও হিসেবে আটোয়ারী তে ছিলেন। বলা যায় তিনি কখনো সরকারি কর্মকর্তা হিসেবে কাজ করেননি। তিনি সকলকে নিজের আপন মানুষ ভেবে কাজ করেছেন এবং সেটা সবার চোখেও পড়েছে। দীর্ঘ এই সময়ে তিনি প্রশংসিত হয়েছেন। তবুও মানবতার ক্ষেত্রে চুল পরিমাণ ঘাটতি রাখেননি৮ এই ইউএনও। এর আগে উপজেলার সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও প্রেসক্লাব ও সাংবাদিকদের সংগঠন ও বিভিন্ন সমাজসেবী সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা ফুল ও ক্রেস্ট দিয়ে বিদায় সংবর্ধনা জানান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: মুশফিকুল আলম হালিম কে। অনেক উদীয়মান তরুণ ইউএনওর বিদায় উপলক্ষে ফেসবুকে লেখেন, সরকারি রুটিন ওয়ার্কে থেকেও সাধারণের মন জয় করা একজন মানবিক, বিদায়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: মুশফিকুল আলম হালিম যোগদান করার পর থেকেই সরকারি সেবা সর্বসাধারণের দুয়ারে পৌছিয়ে দিতে নিজেকে নিবেদন করেছেন। গত দুই বছরে তিনি তার কর্মের দ্বারা আটোয়ারীর সর্বস্তরের মানুষের মন জয় করেছেন। যে কোন পরিস্তিতিতেও তিনি উপজেলার এপ্রান্ত থেকে ওপ্রান্ত পর্যন্ত ছুটে গেছেন সরকারি সাহায্য নিয়ে। বাড়িয়ে দিয়েছেন মানুষের প্রতি মানবিকতার হাত। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার দরজা সত্যিকার অর্থেই উন্মুক্ত ছিলো সকলের জন্য। ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সকলের কাছে তিনি একজন সজ্জন,পরোপকারি ব্যক্তি হিসেবে অল্প সময়ে পেয়েছেন পরিচিতি। রাজনীতিবিদ, ব্যবসায়ীসহ সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে সেতু হিসেবে কাজ করেছেন। যেকোন প্রাকৃতিক দুর্যোগে ব্যতিব্যস্ত হয়ে পড়তেন। অনাবিল, সুখ-শান্তিতে সমৃদ্ধ হোক আপনার পারিবারিক জীবন, আপনি দীর্ঘজীবী হোন, সুস্বাস্থ্য ও সমৃদ্ধিতে পৌঁছে যান কাঙ্খিত গন্তব্যে, এই আমাদের আন্তরিক চাওয়া। তিনি কুড়িগ্রাম জেলার সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে যোগদান করবেন। অফিসার্স ক্লাবের সকলেই বক্তব্যেই ইউ এন ও কে বলেন, ভালো থাকবেন আটোয়ারী,উপজেলার মানুষের প্রিয় ব্যক্তিত্ব সম্মানিত বিদায়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মুশফিকুল আলম হালিম (Uno Atwari Panchagarh) মহোদয়।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপডেট সময় : 12:36:23 pm, Saturday, 9 December 2023
63 বার পড়া হয়েছে
error: Content is protected !!

বিদায় বেলায় অশ্রুসিক্ত আটোয়ারীর ইউএনও

আপডেট সময় : 12:36:23 pm, Saturday, 9 December 2023

চোখে ছিলো পানি, তবুও স্নিগ্ধ হাসি দিয়ে সহকর্মী ও উপজেলার সকলের কাছ থেকে বিদায় নিলেন পঞ্চগড়ের আটোয়ারী,উপজেলার মানুষের প্রিয় ব্যক্তিত্ব সম্মানিত বিদায়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: মুশফিকুল আলম হালিম (Uno Atwari Panchagarh) মহোদয়। অফিসার্স ক্লাবের আয়োজনে বৃহস্পতিবার (৭ ডিসেম্বর ) দুপুরে উপজেলা পরিষদ হল রুমে বিদায় অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। বিদায় বেলায় দেখা গেলো এমন হৃদয় বিদারক চিত্র। বিদায় কালে বিদায়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: মুশফিকুল আলম হালিম বলেন, ভালো থাকুক আটোয়ারী উপজেলার প্রতিটি মানুষ। আমার কর্মজীবনে সেরা সঞ্চয় পেয়েছি আপনাদের ভালোবাসা। সরকারি চাকুরিজীবী হিসেবে বদলিজনিত কারণে কোনো জেলায় বা উপজেলায় স্থায়ী হওয়ার সুযোগ নেই প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের। উপজেলায় কর্মরত অবস্থায় সহকর্মী, জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের অনেক রকমের সহয়তা আমি পেয়েছি। কাজ আদায় করার জন্য হয়তো কারো বিরাগভাজন হয়েছি। খোলা চোখ দিয়ে সবকিছু দেখা যায় না। চোখের আড়ালেও অনেক কিছু থাকে। তবে নিজের অজান্তেও যদি কাউকে কষ্ট দিয়ে থাকি, তা মনে রাখবেন না। বিদায়বেলায় উপস্থিত বেশির ভাগ মানুষের চোখেই ছিলো জল। আবেগ থামাতে না পেরে কেঁদে ফেলেন অনেকেই। তৈরি হয় এক আবেগঘন পরিবেশ। জানা যায়, প্রায় দুই বছর ইউএনও হিসেবে আটোয়ারী তে ছিলেন। বলা যায় তিনি কখনো সরকারি কর্মকর্তা হিসেবে কাজ করেননি। তিনি সকলকে নিজের আপন মানুষ ভেবে কাজ করেছেন এবং সেটা সবার চোখেও পড়েছে। দীর্ঘ এই সময়ে তিনি প্রশংসিত হয়েছেন। তবুও মানবতার ক্ষেত্রে চুল পরিমাণ ঘাটতি রাখেননি৮ এই ইউএনও। এর আগে উপজেলার সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও প্রেসক্লাব ও সাংবাদিকদের সংগঠন ও বিভিন্ন সমাজসেবী সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা ফুল ও ক্রেস্ট দিয়ে বিদায় সংবর্ধনা জানান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: মুশফিকুল আলম হালিম কে। অনেক উদীয়মান তরুণ ইউএনওর বিদায় উপলক্ষে ফেসবুকে লেখেন, সরকারি রুটিন ওয়ার্কে থেকেও সাধারণের মন জয় করা একজন মানবিক, বিদায়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: মুশফিকুল আলম হালিম যোগদান করার পর থেকেই সরকারি সেবা সর্বসাধারণের দুয়ারে পৌছিয়ে দিতে নিজেকে নিবেদন করেছেন। গত দুই বছরে তিনি তার কর্মের দ্বারা আটোয়ারীর সর্বস্তরের মানুষের মন জয় করেছেন। যে কোন পরিস্তিতিতেও তিনি উপজেলার এপ্রান্ত থেকে ওপ্রান্ত পর্যন্ত ছুটে গেছেন সরকারি সাহায্য নিয়ে। বাড়িয়ে দিয়েছেন মানুষের প্রতি মানবিকতার হাত। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার দরজা সত্যিকার অর্থেই উন্মুক্ত ছিলো সকলের জন্য। ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সকলের কাছে তিনি একজন সজ্জন,পরোপকারি ব্যক্তি হিসেবে অল্প সময়ে পেয়েছেন পরিচিতি। রাজনীতিবিদ, ব্যবসায়ীসহ সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে সেতু হিসেবে কাজ করেছেন। যেকোন প্রাকৃতিক দুর্যোগে ব্যতিব্যস্ত হয়ে পড়তেন। অনাবিল, সুখ-শান্তিতে সমৃদ্ধ হোক আপনার পারিবারিক জীবন, আপনি দীর্ঘজীবী হোন, সুস্বাস্থ্য ও সমৃদ্ধিতে পৌঁছে যান কাঙ্খিত গন্তব্যে, এই আমাদের আন্তরিক চাওয়া। তিনি কুড়িগ্রাম জেলার সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে যোগদান করবেন। অফিসার্স ক্লাবের সকলেই বক্তব্যেই ইউ এন ও কে বলেন, ভালো থাকবেন আটোয়ারী,উপজেলার মানুষের প্রিয় ব্যক্তিত্ব সম্মানিত বিদায়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মুশফিকুল আলম হালিম (Uno Atwari Panchagarh) মহোদয়।